নোয়াখালীতে আ’লীগের সম্মেলনে ২ পক্ষে সংঘর্ষ, আহত শতাধিক

প্রকাশ: ২০ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২০ নভেম্বর ২০১৯      

নোয়াখালী প্রতিনিধি

হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন সংঘর্ষে আহতরা- সমকাল

নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের জেলা সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের শতাধিক কর্মী সমর্থক আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

বুধবার সকাল পৌনে ১১টার দিকে জেলা শহর মাইজদীর প্রধান সড়কের টাউন হল থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র শহিদ উল্যাহ খান সোহেলের অনুসারী ও জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সদর-সুবর্ণচর আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরীর সমর্থকরা নোয়াখালী টাউনহলের মোড়ে মুখোমুখি হলে প্রথমে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও পরে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে অনেক লোকজন আহত হন। একপর্যায়ে ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলির শব্দে শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সৈয়দ মহিউদ্দিন আব্দুল আজিম সমকালকে জানান, হাসপাতালে দুই গ্রুপের ১০২ জন চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন। এদের মধ্যে অন্তত ৭০ জন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে গেছেন।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন বলেন, ‘দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে সঠিক কতজন আহত হয়েছেন এখনই বলতে পারছি না।’

সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, শান্তিপূর্ণ সম্মেলনকে বানচাল করার উদ্দেশে সোহেলের অনুসারীরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে।

পাল্টা অভিযোগ করে নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র শহিদ উল্যাহ খান সোহেল বলেন, বিনা উস্কানিতে একরামুল করিম চৌধুরী ও তার লোকজন আমাদের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়েছে।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর হোসেন দুই গ্রুপের সংঘর্ষের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরিস্থিতি শান্ত রাখতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ সর্তক অবস্থায় রয়েছে।