সনাতনী সিগন্যালের কারণেই উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা: তদন্ত প্রতিবেদন

প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০১৯   

সিরাজগঞ্জ ও উল্লাপাড়া প্রতিনিধি

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ত্রুটিপূর্ণ ও সনাতনী সিগন্যাল ব্যবস্থার কারণেই সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া স্টেশনে রংপুর আন্তঃনগর ট্রেনটি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটি। সিগন্যাল ব্যবস্থা দ্রুত সংস্কার করা প্রয়োজন বলে মত দিয়েছে কমিটি। অন্যথায় আবারও দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে বলে তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফিরোজ মাহমুদ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করেন। এটি জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে রেল মন্ত্রণালয়, রেল অধিদপ্তর ও পশ্চিমাঞ্চল রেল কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে।

গত ১৪ নভেম্বর দুপুরে ঢাকা-রংপুরগামী রংপুর আন্তঃনগর ট্রেনের ইঞ্জিন ও ৭টি বগি উল্লাপাড়া স্টেশনে লাইনচুত্য হয়। ইঞ্জিন ও এসি বগিতে প্রথমে আগুন ধরে পরে ছড়িয়ে যায় আরও ৩টি সাধারণ বগিতে। হুড়াহুড়ি করে নামতে গিয়ে ২৫ জন আহত হন। এ ঘটনায় রেল মন্ত্রণালয়, পশ্চিমাঞ্চল রেল রাজশাহী ও পাকশী এবং স্থানীয় জেলা প্রশাসন ৪টি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তবে জেলা প্রশাসন ছাড়া বাকিগুলোর তদন্ত প্রতিবেদন এখনও জমা পড়েনি বলেও রেল বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

জেলা প্রশাসন কমিটির মতে, সিগন্যাল দেওয়ার পর 'স্টকলাইন বা মেইন রেলপলথ' ও 'ট্যাং রেল' দুটি লক বা একসঙ্গে যুক্ত থাকার কথা থাকলেও মাঝখানে যথেষ্ট ফাঁকা ছিল। এ কারণে দ্রুতগামী ট্রেনটির ইঞ্জিন বা বগিগুলো লাইনচ্যুত হয়ে যায়। ফাঁকা না থাকলে লাইনচ্যুত হয়ে হয়তো দুর্ঘটনা ঘটত না। এতে বলা হয় সিগন্যালে 'গ্রিন' দেখানো হলেও বাস্তবের সঙ্গে মিল না থাকায় ট্রেনটি মেইন লাইনে না গিয়ে লুপ লাইনে ঢুকে দুর্ঘটনায় পড়ে। তদন্ত প্রতিবেদনে সিগন্যাল ব্যবস্থা ২০০৩ সালের বা সনাতনী বলেও মন্তব্য করা হয়।