সুন্দরবন রক্ষায় দুই মাসের কর্মসূচি

প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯      

খুলনা ব্যুরো

ফাইল ছবি

সুন্দরবন রক্ষা এবং সুন্দরবনকেন্দ্রিক বাণিজ্য বন্ধ করতে দুই মাসের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় খুলনা জেলা কমিটির অস্থায়ী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- ১৫ ডিসেম্বর বিকেল ৩টায় পরিবেশ অধিদপ্তর, খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ে স্মারকলিপি পেশ, ১৯ ডিসেম্বর বিকেল ৪টায় পিকচার প্যালেস মোড়ে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ২৮ ডিসেম্বর বিকেল ৪টায় রূপসা ফেরিঘাট চত্বরে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ৪ জানুয়ারি ২০২০ সকাল ১১টায় কাটাখালী মোড়ে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ১১ জানুয়ারি বেলা ১১টায় চুলকাটি বাজারে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ১৮ জানুয়ারি সকাল ১১টায় ফয়লা বাজারে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ২৫ জানুয়ারি দুপুর ১২টায় বাবুরবাড়ি, রামপাল পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১টায় মোংলা ঘাটে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ৪ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় বটিয়াঘাটা বাজারে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি, ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় খুলনার অস্থায়ী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন।

এ ছাড়াও স্কুুল-কলেজে কুইজ প্রতিযোগিতা, সুন্দরবন অলিম্পিয়াড, সংগঠনের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক সুলতানা কামালের অংশগ্রহণে কনভেনশন, সাংস্কৃৃতিক অনুষ্ঠান এবং সুলতানা কামালসহ জাতীয় নেতাদের অংশগ্রহণে মহাসমাবেশ কর্মসূচি পালিত হবে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি-খুলনার সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মো. বাবুল হাওলাদার।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বিশ্বঐতিহ্য সুন্দরবন আজ বিভিন্ন কারণে ঝুঁকির মধ্যে। অথচ বিশ্বের একমাত্র এই ম্যানগ্রোভ বনকে পৃথিবীর দ্বিতীয় ফুসফুস বলা হয়। সুন্দরবন এখনও পৃথিবীর দ্বিতীয় কার্বনশোষক বন হিসেবে খ্যাত। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্রমবর্ধমান প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিশেষ করে সাইক্লোনে সুন্দরবন ঢালের মতো দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলের রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করে।

সংবাদ সম্মেলনে বেশকিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের আহ্বায়ক এসএম শাহনওয়াজ আলী, এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, এসএম দেলোয়ার হোসেন, আফজাল হোসেন রাজু, মাহবুব আলম বাদশা, এমএ কাশেম পাটওয়ারী, মো. ফিরোজ আলী।