আ'লীগ নেতা প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি জামায়াত নেতা

প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯      

সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলায় একটি তফসিরুল কোরআন মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি করা হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ শাহারিয়া খান বিপ্লবকে। এই মাহফিলে বিশেষ অতিথি করা হয়েছে উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির নায়েবে আমির মাওলানা আব্দুল হামিদকে।

উপজেলার বিভিন্ন স্থানে লাগানো পোস্টারে তাদের নাম রয়েছে। এ নিয়ে নানাজন নানা কথা বলছেন। বিশেষ করে বিজয়ের মাস 'ডিসেম্বরে' এমন পোস্টার একদম দৃষ্টিকটু বলে দাবি করেছেন অনেকেই। তবে আলহাজ শাহারিয়া খান বিপ্লব দাবি করেন, তাকে না জানিয়েই এমন পোস্টার ছাপানো হয়েছে।

উপজেলার দামোরপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন একটি মাঠে আগামী ৬ এবং ৭ ডিসেম্বর স্থানীয় পশ্চিম দামোরপুর যুব সমাজের উদ্যোগে এই মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। তবে প্রচারণার ওই পোস্টারে আয়োজকদের কারও নাম-ঠিকানা নেই।

পোস্টার অনুযায়ী প্রথম দিন মাহফিলে প্রধান অতিথি থাকবেন শাহারিয়া খান বিপ্লব। আর এ দিনই বিশেষ অতিথি থাকবেন আব্দুল হামিদ। দ্বিতীয় দিন ৭ ডিসেম্বর এই মাহফিলে প্রধান অতিথি থাকবেন গাইবান্ধা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। এ দিন বিশেষ অতিথি থাকবেন জামায়াতে ইসলামী দলীয় সাদুল্যাপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান মুন্সি।

এ নিয়ে শাহারিয়া খান বিপ্লব বলেন, আমাকে না জানিয়ে এবং আমার কোনো মতামত না নিয়েই ওই পোস্টার ছাপানো হয়েছে। আমি ওই মাহফিলে যাব না।

তবে এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে আতাউর রহমান আতার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও দামোদর ইউপি চেয়ারম্যান এজেডএম সাজেদুল ইসলাম স্বাধীন বলেন, মাহফিলের পোস্টারে থাকা দুই জামায়াত নেতার নাম বাদ দিয়ে নতুন করে পোস্টার ছাপানো হবে। তাদের আর এই মাহফিলে ডাকা হবে না।

এ নিয়ে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শাহ ফজলুল হক রানা বলেন, বতর্মানে দলে শুদ্ধি অভিযান চলছে। এর মধ্যেই দলীয় পদে থেকে কেউ জামায়াত-বিএনপিকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিলে তিনি দলীয়ভাবেই সেই শাস্তি পাবেন।

সাদুল্যাপুর থানার ওসি মাসুদ রানা জানান, পশ্চিম দামোরপুরের ওই মাহফিল অনুষ্ঠানের জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি।