কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল রেল স্টেশন থেকে এক দম্পতিকে ফুসলিয়ে বাড়ি নিয়ে গিয়ে স্বামীকে মারধর ও স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। শশীদল রেল স্টেশনের কাছে শনিবার রাতের এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ৫ জনকে আটক করেছে। 

ভুক্তোভোগী দম্পতির বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়া সদর উপজেলায়। ধর্ষিতার স্বামী বলেন, আমি স্ত্রীকে নিয়ে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার নালতা এলাকায় শ্বশুড়বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশে শনিবার সন্ধ্যায় আখাউড়া থেকে রওনা হই। রাত ৮টার দিকে ট্রেনে করে শশীদল রেল স্টেশনে পৌঁছাই। ট্রেন থেকে নেমে শশীদল স্টেশনের নাসির মিয়ার চায়ের দোকানে বসে চা পান করি। এ সময় নাসির আমাদের কাছে বিভিন্ন বিষয় জানতে চান এবং জানান যে, এতো রাতে নালতা যাওয়ার কোনো যানবাহন পাওয়া যাবে না। এরপর তিনি রাতটা তার বাড়িতে থেকে সকালে নালতায় যাওয়ার প্রস্তাব দেন এবং বিভিন্নভাবে ফুসলিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে পরিস্থিতি অনুকূলে না দেখে আমরা এক পর্যায়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে চাই। এ সময় নাসির ও তার সহযোগী শশীদল গ্রামের জমির হোসেন আমাদের দু'জনের মুখ চেপে ধরে পাশের একটি খোলা জমিতে নিয়ে যায়। সেখানে তারা আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে নাসির ও তার সহযোগীরা আমাকে মারধর করে মুখ চেপে ধরে রাখে এবং ওই এলাকার লাবু মিয়া আমার স্ত্রীকে ধর্ষণ করে। এরপর ওই গ্রামের নজরুল ইসলাম ও সাদ্দাম হোসেন আমার স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে আমি ও আমার স্ত্রীর চিৎকার দিলে এলাকাবাসী ৯৯৯ এ ফোন দেয়। এরপর পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, সাদ্দাম হোসেন, লাবু মিয়া ও জমির হোসেনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।