কথা কাটাকাটির জেরে মাকে গলা কেটে হত্যা, ছেলে গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯      

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে ছুরি দিয়ে মাকে গলা কেটে হত্যা করেছে ছেলে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের ডোয়াইল পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সালেহা বেগম (৬০) ওই গ্রামের মৃত হাতেম আলীর স্ত্রী। এ ঘটনায় ছেলে মাসুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহতের বড় ছেলে মুফতি হাবিবুর রহমান জানান, তারা দুই ভাই ও এক বোন। বাবার মৃত্যুর পর মা সালেহা বেগম তিন সন্তানকে নিয়ে সংসার চালাচ্ছিলেন। বোন নাজমা বেগমের বিয়ে হয়েছে এবং ছোট ভাই মাসুদুর রহমান কোরআনে হাফেজ। সালেহা বেগম ছোট ছেলে মাসুদকে বেশি আদর করতেন বলে তার কাছেই থাকতেন। মাসুদ কোনো কাজকর্ম করে না। এ নিয়ে মায়ের সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া হতো। ছোট বোন নাজমার ছেলে আবদুল্লাহ নানির কাছে থেকে পড়ালেখা করছিল। বুধবার আবদুল্লাহকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় মাসুদ। এ নিয়ে রাতে মায়ের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে হঠাৎ মাসুদ মায়ের ওপর আক্রমণ চালিয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। হত্যার পর ঘরের দরজায় রক্তাক্ত ছুরি নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিল মাসুদ। প্রতিবেশীরা এলে সে পালানোর চেষ্টা করে। তখন তাকে ধাওয়া দিয়ে ধরে পুলিশে দেয় এলাকাবাসী।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মাজেদুর রহমান বলেন, মাসুদ তার মাকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে, তবে কারণ বলেনি। এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে মুফতি হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে মাসুদকে আসামি করে মামলা করেছেন।