ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

দুই সংগঠনের দ্বন্দ্বে বাস-অটোরিকশা চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তি

দুই সংগঠনের দ্বন্দ্বে বাস-অটোরিকশা চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তি

বাস মালিক সমিতির দ্বন্দ্বে বন্ধ বাস চলাচল - সমকাল

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা

প্রকাশ: ৩১ আগস্ট ২০২৩ | ১৫:০৮ | আপডেট: ৩১ আগস্ট ২০২৩ | ১৫:০৮

ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলায় দুই শ্রমিক সংগঠনের দ্বন্দ্বে তিন দিন ধরে বাস ও অটোরিকশা চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ কারণে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাত্রীসাধারণ।

জানা গেছে, সিএনজি (অটোরিকশা) মালিক সমিতি পরিষদের লোকজনের সঙ্গে বাস মালিক সমিতির দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। মাঝে মধ্যে সিএনজিচালিত অটোরিকশা আটকে দেওয়া, ‘টোকেন’ কেড়ে নেওয়াসহ নানা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। 

এর জের ধরে গত সোমবার গোয়াতলা স্টেশন এলাকায় সড়কে বাস পরিবহনের লোকজন ও অটোরিকশাচালকদের বাগ্বিতণ্ডা হয়। পরে ময়মনসিংহ বাস মালিক সমিতি ধোবাউড়া-তারাকান্দা সড়কে বাস চলাচল এবং অটোরিকশা মালিক সমিতি অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করে দেয়।

বৃহস্পতিবার গোয়াতলা বাজারে বসে থাকতে দেখা গেল আব্দুল জলিল নামে এক ব্যক্তিকে। তিনি যাবেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সমকাল প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি বলেন, ‘আমার ভাই হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আমি দেখতে যাব, সকাল থেকে বসে আছি, কোনো যানবাহন পাচ্ছি না। এখন শুনি বাস-সিএনজি (অটোরিকশা) নাকি ঝগড়া লেগেছে, তাদের ঝগড়া সমাধান না হলে যাবে না। কী যে করব বুঝতে পারছি না।’

আদালতে যাওয়ার জন্য বসে থাকতে দেখা গেল আকিকুল ইসলাম নামে এক যাত্রীকে। তিনি বলেন, ‘ময়মনসিংহ জজ কোর্টে আজ আমার মামলার হাজিরা। সকাল থেকে এসে বসে রয়েছি, কোনো যানবাহন পাচ্ছি না। দেখি কী করা যায়, মোটরসাইকেল দিয়ে হলেও যেতে হবে।’

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় ধোবাউড়া অটোরিকশা মালিক সমিতির সভাপতি এমদাদুল হক ফকিরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘কয়েক দিন ধরে তাদের (বাস মালিক) সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে। আজ (বৃহস্পতিবার) আমরা বসে সিদ্ধান্ত নেব।’

ধোবাউড়া বাস মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল কুদ্দুছ মিয়া জানান, বাস ও অটোরিকশা মালিক সমিতি মিলে টোকেনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এভাবেই ভালো চলছিল। হঠাৎ অটোরিকশা মালিক সমিতির কিছু সদস্য গোয়াতলা বাজারে বাসের চালকদের সঙ্গে ঝগড়া করলে বাস চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এখন জেলা বাস মালিক সমিতির সিদ্ধান্ত ছাড়া বাস চলবে না।

ধোবাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিশাত শারমীনের ভাষ্য, এই বিষয়ে দ্রুত সমাধানের জন্য থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বলা হয়েছে। বিষয়টি তিনিই দেখছেন।

আরও পড়ুন

×