অবশেষে বিদ্যালয়ে ফিরল হরিজন শিশু বিরাট

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২০   

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শরীরচর্চা করছে বিরাট- সমকাল

বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শরীরচর্চা করছে বিরাট- সমকাল

অবশেষে বিদ্যালয়ে ফিরেছে হরিজন সম্প্র্রদায়ের সেই খুদে শিক্ষার্থী বিরাট বাসপর। মঙ্গলবার থেকে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌরশহরের বেসরকারি অগ্রদূত চাইল্ড কেয়ার হোমস স্কুুলে ক্লাস শুরু করেছে সে। এ সময় বিদ্যালয়ের সহপাঠীদের সঙ্গে থাকা বিরাটের চোখেমুখে ছিল উচ্ছ্বাস।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বিরাটের স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শরীরচর্চা করছে বিরাট। পরে শ্রেণিকক্ষে সহপাঠীদের সঙ্গে পাঠ নেয় সে। এর আগে বাবা মনা বাসপর ছেলেকে বিদ্যালয়ে নিয়ে এলে শিক্ষকরা বিরাটকে বরণ করে নেন। এ সময় বিরাট বলে, আমার খুব আনন্দ লাগছে। আমি পড়ালেখা করে অফিসার হবো। স্কুলে আসার পর স্যাররা আমাকে আদর করে চকোলেট ও বিস্কুট দিয়েছেন।

এর আগে গত ১৩ জানুয়ারি কুলাউড়া শিবির এলাকার অগ্রদূত চাইল্ড কেয়ার হোমসে যথাযথ নিয়ম মেনে ছেলে বিরাটকে ভর্তি করেন মনা বাসপর। তবে বিদ্যালয়ের অন্য শিশুদের অসুবিধা হবে- এই অভিযোগে ভর্তির পরদিন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিরাটের বাবাকে মোবাইল ফোনে জানিয়ে দেয় তাকে স্কুলে না পাঠাতে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে শিশুটির বাবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত আবেদন দেন। এরপর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে বিরাটকে ক্লাসে ফিরিয়ে নিল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে সমকালে 'হরিজন বলে স্কুলে যেতে বাধা' শিরোনামে একটি প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিখিল বর্ধন বলেন, বিরাট যাতে ঠিকমতো পড়াশোনা করতে পারে সে ব্যাপারে সব শিক্ষক আন্তরিক। সহপাঠীদের সঙ্গে আনন্দের সঙ্গে ক্লাস করেছে সে। পরিনগর এলাকায় বিরাটের বাসায় গেলে তার বাবা মনা বাসপর ও মা পুতুল বাসপর বলেন, সব বাধা শেষে ইউএনও স্যারের সহযোগিতায় ছেলে স্কুলে ফিরেছে। ছেলে পড়তে পারবে- এটাই আমাদের আনন্দ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, বিরাট যাতে নির্বিঘ্নে পড়তে পারে সে জন্য যা কিছু প্রয়োজন সবই করা হবে।