রোহিঙ্গা সংকট আমাদের ওপর বোঝা হয়ে আছে: কাদের

প্রকাশ: ২২ জানুয়ারি ২০২০   

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকট আমাদের ওপর বোঝা হয়ে আছে। আমরা বিশ্ব বিবেকের কাছে আহ্বান জানাব, এই অসহনীয় বোঝা বাংলাদেশের ঘাঁড় থেকে সরিয়ে নিন। আমাদের জনগণের ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে যাচ্ছে। বিশেষ করে চীন এবং ভারতকে বলব, আমাদের জনগণ কষ্ট পাচ্ছে। আমাদের ইকোলজি, আমাদের পর্যটন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে; অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে রোহিঙ্গা নিয়ে একটি রায় ঘোষণা হওয়ার কথা রয়েছে। আশা করব, বিশ্বের আদালত আমাদের প্রতি সুবিবেচনা করবে। শেখ হাসিনা ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ার যে সুযোগ দিয়েছেন, সেই উদারতার ফসল যাতে আমরা পাই।

বুধবার বিকেলে কক্সবাজারের চকরিয়া সরকারি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দ্বিতীয়বারের মতো আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় ওবায়দুল কাদেরকে এই সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ওবায়দুল কাদের বলেন, কপবাজারের লবণ চাষি ও চিংড়ি চাষিদের বাঁচাতে হবে। লবণ নিয়ে সংকটের কথা আসছে, সেই সংকট যাতে না হয় সেজন্য মধ্যস্বত্বভোগী সিন্ডিকেট ভেঙে দেওয়া হবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও আলোচনা করা হবে। এতে লবণ ও চিংড়ি চাষিদের দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান হবে।

চকরিয়া ও পেকুয়ার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে সন্তানহারা মা, স্বামীহারা নববধূ, ভাই হারা ভাইয়ের আহাজারিতে চকরিয়ার বাতাস ছিল ভারি। রক্তের বন্যা হয়ে মানুষের চোখের পানি নদীর পানির সঙ্গে একাকার হয়েছিল। সেই চকরিয়াবাসীর আজকে সুখের দিন। এখানে বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের জোয়ারে নবজাগরণের সৃষ্টি হয়েছে।

হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে দুই উপজেলায় ১০টি অভ্যন্তরীণ সড়কের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, চকরিয়া পৌরশহরের জনগণের দুর্ভোগ লাঘবে চিরিঙ্গায় একটি ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে। এ সময় চকরিয়া সরকারি কলেজের দেওয়াল নির্মাণ এক যুগেও হয়নি উল্লেখ করে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ শুরু করতে কপবাজার-১ আসনের এমপি জাফর আলমকে নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

জাফর আলমের সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনায় আরও বক্তব্য দেন স্থানীয় এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল, আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান প্রমূখ।

জেনারেল আবেদীন স্মরণে নাগরিক সভা: পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, লোহাগাড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রয়াত সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন স্মরণে নাগরিক সভা হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলার চুনতি মেহেরুন্নেছা মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিশেষ অতিথি ছেলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ, চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদ, ওয়াসিকা আয়শা খান, ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া, আওয়ামী লীগ নেতা ড. সেলিম মাহমুদ, আমিনুল ইসলাম আমিন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কর্নেল ফোরকান প্রমুখ। 

সভায় সভাপতিত্ব করেন মরহুম আবেদীনের বড় ভাই ইসমাইল মানিক। শোকসভার সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন লোহাগাড়া নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক ও স্থানীয় সাংসদ অধ্যাপক আবু রেজা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন নদভী। বক্তারা বলেন, লোহাগড়ায় শিক্ষার আলো জ্বালিয়েছেন জেনারেল আবেদীন। তিনি ছিলেন স্বল্পভাষী। কারও সঙ্গে রাগান্বিত হতেন না। সে কারণে সবার কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন তিনি।