কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' সমুদা বেগম (৪০) নামে এক 'মাদক কারবারি' নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, নিহত নারী ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন। ঘটনাস্থল থেকে ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার ভোরে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের খারাংখালী মগপাড়ার পাশে লবণের মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন- উপপরিদর্শক আরিফুর রহমান, কনস্টেবল রুবেল, রাশেল ও হাবিব।

নিহত নারী টেকনাফ হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘড়িয়া পাড়া এলাকার মৃত নুর সালামের স্ত্রী।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, রোববার ভোরে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের খারাংখালী মগপাড়ার পাশে লবণের মাঠ দিয়ে ইয়াবা পাচারের খবরে পুলিশের একটি টিম সেখানে গেলে মাদক কারবারিরা গুলি বর্ষণ করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলিতে পুলিশের কয়েকজন আহত হন। এক পর্যায়ে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নারী মাদক কারবারিকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। সেখানে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক প্রণয় রুদ্র বলেন, পুলিশ গুলিবিদ্ধ এক নারীকে নিয়ে আসে। তার শরীরে গুলির আঘাত রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে কক্সবাজারে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া আহত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।