রিফাত হত্যা: মা ও দুই বোনের সাক্ষ্যগ্রহণ

প্রকাশ: ০৯ জানুয়ারি ২০২০   

বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার মা ডেইজি বেগম, বোন ইসরাত জাহান মৌ ও চাচাতো বোন নুসরাত জাহান অনন্যা আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর পর্যন্ত বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন। এরপর আসামি পক্ষের আইনজীবীরা তাদের জেরা করেন।

এ ছাড়া নিহত রিফাতের স্ত্রী জামিনে থাকা আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন আবেদন কেন বাতিল করা হবে না- জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন আদালত। আগামী ১৪ জানুয়ারির মধ্যে মিন্নিকে আইনজীবীর মাধ্যমে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এ সময় জামিনে থাকা মিন্নিসহ অন্য আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালতে দেওয়া সাক্ষ্যে রিফাতের মা ডেইজি বেগম বলেন, ঘটনার দিন সকালে মিন্নির ফোন কল পেয়ে রিফাত তার (মা) কাছ থেকে ৫০০ টাকা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। রিফাত হত্যায় মিন্নিকে দায়ী করে জড়িত সব আসামির শাস্তির দাবি জানান ডেইজি বেগম।

রিফাতের বোন মৌ ও চাচাতো বোন অনন্যা আদালতে দেওয়া সাক্ষ্যে দাবি করেন, রিফাত হত্যায় মূল ভূমিকা রাখেন মিন্নি। মৌ বলেন, নয়ন বন্ডের সঙ্গে পরকীয়ার কারণে রিফাতের সঙ্গে প্রায়ই মিন্নির ঝগড়া হতো। এর জেরে নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজী বাহিনীর সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে রিফাতকে হত্যা করা হয়।

বরগুনা জেলা কারাগারে থাকা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক আট আসামিকে সকালে আদালতে হাজির করা হয়।

এদিকে সাক্ষীদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ তুলে গত বুধবার মিন্নির জামিন বাতিল চেয়ে আবেদন করেছিল রাষ্ট্রপক্ষ। এর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার বিচারক কেন মিন্নির জামিন বাতিল করা হবে না- জানতে চেয়ে নোটিশ জারি করেন। 

মিন্নির আইনজীবী মাহাবুবুল বারী আসলাম বলেন, যে অভিযোগে মিন্নির জামিন বাতিলের আবেদন করা হয়েছে তা হাস্যকর ও গল্পের মতো। আমরা আইনগতভাবেই এর জবাব দেব।

এ মামলায় ৭৫ সাক্ষীর মধ্যে বুধ ও বৃহস্পতিবার চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। তাদের জেরাও শেষ করেছেন আসামি পক্ষের সাত আইনজীবী। আগামী সোমবার সকালে আবার তিন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করবেন আদালত।