দুর্নীতির মামলায় আগাম জামিন পেয়ে সাবেক এমপি আওয়ালের শোডাউন

প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২০   

বরিশাল ব্যুরো ও পিরোজপুর প্রতিনিধি

মোটর শোভাযাত্রা নিয়ে শহরে প্রবেশ করছেন একেএমএ আউয়াল -সমকাল

মোটর শোভাযাত্রা নিয়ে শহরে প্রবেশ করছেন একেএমএ আউয়াল -সমকাল

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দূদক) তিন মামলায় স্ত্রীসহ আগাম জামিন পেয়ে শোডাউন করে পিরোজপুরে আসলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য একেএমএ আউয়াল। 

মঙ্গলবার তিনি পিরোজপুরের বেকুটিয়া ফেরিঘাট থেকে মোটর শোভাযাত্রা নিয়ে শহরে ঢোকেন। এসময় গাড়ি বহরের সামনে-পেছনে কয়েকশ’ মোটরসাইকেলে তার সমর্থকরা ছিল। 

‘আউয়াল ভাই ভয় নাই, রাজপথ ছাড়িনাই’ এমন স্লোগান দিয়ে সমর্থকরা সাবেক সাংসদ আউয়ালকে নিয়ে পিরোজপুর শহরে প্রবেশ করেন। বেকুটিয়া ফেরিঘাট থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার সড়ক অতিক্রমকালে আউয়াল একটি খোলা মাইক্রোবাসে দাঁড়িয়ে রাস্তার দু’পাশের লোকজনকে হাত নাড়িয়ে শুভেচ্ছা জানান।

পরে তার গাড়িবহর গিয়ে থামে গোপালকৃঞ্চ টাউন হল মাঠে। সেখানে আউয়াল সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে উপস্থিত কর্মী-সমর্থকসহ পিরোজপুরবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে শহরের পাড়েরহাট সড়কের বাসভবনে চলে যান। এ শোভাযাত্রায় আউয়ালের সঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ কোন নেতাকে দেখা যায়নি। 

শোডাউন করে পিরোজপুর শহরে আসার কারণ প্রসঙ্গে একেএম আউয়াল বলেন, ‘শোডাউনতো আমি করিনি। স্বতস্ফুর্তভাবে নেতাকর্মীরা আমাকে স্বাগত জানিয়েছে। সমর্থকদের এমন ভালবাসায় আমি মুগ্ধ। 

এদিকে হঠাৎ করে পিরোজপুর শহরের ব্যস্ততম সদর রোড এবং ক্লাব রোডে মোটর শোভাযাত্রার কারণে ব্যাপক যানজট লেগে যায়। এতে কিছুক্ষণের জন্য শহরের বিভিন্ন সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। 

উল্লেখ্য, খাসজমিতে ভবন নির্মান, অর্পিত সম্পত্তিতে নিজের নামে ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা এবং সরকারি পুকুর ভরাট করে দখলে নেওয়ার অভিযোগে পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা দায়ের করে দুদক। এর মধ্যে একটি মামলায় তার স্ত্রী লায়লা পারভিনকেও আসামি করা হয়েছে। গত ৩০ ডিসেম্বর দুদকের প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. আলী আকবর বাদি হয়ে দুদক বরিশাল সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে এ ৩টি মামলা দায়ের করেন। গত ৭ জানুয়ারি একেএমএ আউয়াল এবং তার স্ত্রী লায়লা পারভীন হাইকের্টে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের বেঞ্চ তাদের ৮ সপ্তাহের আগাম জামিন দেন।