ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদরাসা সুপার শ্রীঘরে

প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারি ২০২০      

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার জালালিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা আব্দুস শহীদকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। 

সোমবার মৌলভীবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল আদালতে ওই সুপার আত্মসমর্পণ করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

তার বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানিসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে নির্যাতিতা এক ছাত্রীর বাবা গত বছরের ১৯ আগস্ট মৌলভীবাজারের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালে মামলা (নং-২৮৮/১৯ইং) দায়ের করলে আদালত মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন। 

মৌলভীবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট আমিরুল ইসলাম পংকি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল আদালতের বিচারক বাদি ও বিবাদিপক্ষের শুনানি শেষে যৌন নিপীড়ন আইনের ১০ ধারায় মাওলানা আব্দুস শহীদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠান। 

এর আগে দীর্ঘ তদন্তের পর পিবিআই অভিযুক্ত মাদরাসার সুপার শহীদকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করে। এরই প্রেক্ষিতে আদালত গত ৮ জানুয়ারি তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।  

জানা গেছে, মাওলানা আব্দুস শহীদ হাতে শ্লীলতাহানির শিকার হন মাদরাসার ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম ও ৯ম শ্রেণির ৭ জন ছাত্রী।