রাষ্ট্রীয়ভাবে পলিথিন-প্লাস্টিক নিষিদ্ধ করা উচিত: রাষ্ট্রপতি

প্রকাশ: ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ- পিআইডি

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ- পিআইডি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এ যুগে বিশ্ব প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই আমাদের শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে হবে বিশ্ব নাগরিক হিসেবে। সে জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্য কারিকুলাম সাজাতে হবে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের উপযোগী করে।

এ সময় তিনি দেশের পরিবেশ রক্ষার্থে প্লাস্টিক ও পলিথিন রাষ্ট্রীয়ভাবে নিষিদ্ধ করা উচিত বলে উল্লেখ করেন।

বুধবার পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে চ্যান্সেলর হিসেবে সভাপতির বক্তৃতায় এ কথা বলেন তিনি। রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করা। বর্তমানে পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা অনেক। তবে গুণগত মান নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। উচ্চশিক্ষা যাতে কোনোভাবেই সার্টিফিকেট সর্বস্ব না হয়, তা সম্মিলিতভাবে নিশ্চিত করতে হবে।

গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, তোমাদের হতে হবে সদা সত্যান্বেষী এবং জ্ঞানালোকে সমৃদ্ধ হয়ে দল-মতের ঊর্ধ্বে থেকে নৈতিকভাবে বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী। দেশের কল্যাণে তোমরা হবে আলোর দিশারি, জ্ঞানের ফেরিওয়ালা। লিখিত বক্তব্যের বাইরে রাষ্ট্রপতি বলেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে পলিথিন ও প্লাস্টিকের পানির বোতল নিষিদ্ধ করা উচিত। তা না হলে সারাদেশের পরিবেশ ধ্বংস হয়ে যাবে। আমাদের সবাইকে পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার না করার বিষয়ে সচেতন হতে হবে। আমরা যেভাবে পলিথিন ব্যাগ নিয়ে বাজার থেকে আসছি, তাতে যে দেশ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে, সেদিকে আমরা নজর দিচ্ছি না।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। স্বাগত বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. হারুনর রশীদ। সমাবর্তন বক্তা ছিলেন ইমেরিটাস প্রফেসর ড. এ কে আজাদ চৌধুরী।