বগুড়ায় মহাসড়কের পাশ থেকে নবজাতক উদ্ধার

প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

বগুড়া ব্যুরো

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

বগুড়া শহরের তিনমাথা রেলগেট এলাকায় মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা এক নবজাতককে উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে ওই শিশুটিকে স্থানীয় এক নারী উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কম ওজন নিয়ে জন্মানো শিশুটির অবস্থা সংকটাপন্ন। তাকে ইনকিউবেটরে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

শহরের তিনমাথা রেলগেট এলাকার মুদি দোকানি পুরান বগুড়া এলাকার জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী ববি আক্তার (৪৫) জানান, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার সকালে তিনি বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কের পশ্চিম পাশে নিজের মুদি দোকানে বসে বেচাকেনা করছিলেন। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মহাসড়কের পূর্ব দিকে রেলওয়ের লেভেলক্রসিং সংলগ্ন পরিবহন শ্রমিকদের কার্যালয়ের মাইক থেকে এক নবজাতক পড়ে থাকার ঘোষণা দেওয়া হয়। ওই ঘোষণা শুনে অনেকেই সেখানে ছুটে যান। এক পর্যায়ে তিনিও সেখানে যান এবং সদ্য ভূমিষ্ঠ এক শিশুকে পড়ে থাকতে দেখেন। তখন শ্রমিকদের অনুরোধে তিনি ওই ছেলে শিশুটিকে কোলে তুলে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় শজিমেক হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে ওই নবজাতকটিকে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

পরিবহন শ্রমিক কার্যালয়-সংলগ্ন আব্দুর রহিম নামে এক দোকানি জানান, লেভেলক্রসিং পারাপারের সময় সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা থেকে শিশুটি পড়তে দেখা যায়। তিনি বলেন, ওই অটোরিকশাটি শহরের দিকে দ্রুত চলে যায়।

ববি খাতুন জানান, তার একটি মেয়ে রয়েছে, কোনো ছেলে সন্তান নেই। তাই ওই নবজাতককে তিনি ছেলের মতোই লালন-পালন করতে চান। এমনকি তিনি ওই নবজাতকের নামও রেখেছেন। তার দেওয়া 'তাওহীদ' নামেই হাসপাতালের নার্সসহ অন্যরা শিশুটিকে ডাকাডাকি করছেন।

বগুড়া শজিমেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ জানান, হাসপাতালে আনার কয়েক ঘণ্টা আগে জন্ম নেওয়া শিশুটির ওজন মাত্র ৮০০ গ্রাম। তার ওপর শিশুটি ধুলাবালিতে পড়েছিল- সব মিলিয়ে তার অবস্থা খুব সংকটাপন্ন।