বান্দরবান সদর উপজেলার জামছড়ি এলাকায় মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে ইউনিয়ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বাচনু মার্মা (৫২) নিহত হয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাচনু মার্মাসহ ৭-৮ লোক জামছড়ি মুখপাড়ায় মহাজন নামক এক দোকানীর দোকানে বসে চা পান করছিলেন। এ সময় হঠাৎ পাশের বাগান থেকে মুখোশ পরা অস্ত্রধারী ১০-১২ জনের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ বেরিয়ে এসে বাচনু মার্মাকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি ব্রাশফায়ার করে। এতে ঘটনাস্থলেই বাচনু মার্মা মারা যান এবং ৪ জন গুলিবিদ্ধ হন। খবর পেয়ে পুলিশ ও সেনা সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

এদিকে খবর পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সেনাবাহিনী উপস্থিত হয়। এলাকার চারদিকে নিরাপত্তা জোরদার করেছে সেনাবাহিনী।

আহতদের একজনের আত্মীয় উমংসিং মারমা বলেন, অস্ত্রধারীরা হঠাৎ করে এসে এলোপাতাড়ি গুলি করতে থাকে। এ সময় আতঙ্কিত লোকজন ছুটোছুটি করে পালিয়ে প্রাণ বাঁচার চেষ্টা করে। প্রায় পাঁচ মিনিটের মতো সন্ত্রাসীরা একটানা গুলি ছোড়ে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবানের পুলিশ সুপার (এসপি) জেরিন আক্তার জানান, সন্ত্রাসীদের গুলিতে একজন আ.লীগ নেতা নিহত হয়েছেন। তবে কারা গুলি করেছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ঘটনায় এখনও কাউকে আটক করা যায়নি।