প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মিথ্যা ছিনতাই মামলা করে ফেঁসে গেলেন মামলার বাদী পান্নু মোল্লা। ছিনতাইয়ের অভিযোগ তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ জানতে পারে, মারামারির ঘটনা ভিন্ন খাতে নিতে দেড় লাখ টাকা ছিনতাইয়ের মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। বরিশাল বিমানবন্দর থানা পুলিশ পান্নু মোল্লাকে গ্রেপ্তার করেছে। তিনি বরিশাল সদর উপজেলার জাগুয়া ইউনিয়নের হরিণাফুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা এবং পেশায় গরু ব্যবসায়ী।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) মো. খাইরুল ইসলাম বৃহস্পতিবার দুপুরে তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জানান, মারধর করে দেড় লাখ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ এনে পান্নু মোল্লা গত বুধবার বিমানবন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, ওই দিন সকাল সাড়ে ৮টায় গরু কিনতে বাড়ি থেকে রওনা হলে হরিণাফুলিয়ার খানবাড়ি পুল এলাকায় মোটরসাইকেল আরোহী তিন ছিনতাইকারী তাকে মারধর করে দেড় লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে। মাসুম নামে এক ছিনতাইকারীকে তিনি চিনতে পেরেছেন। সে কটুরাকাঠি এলাকার একজন মুদি ব্যবসায়ী।

উপকমিশনার জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে মাসুমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে মাসুম জানায়, তার খালাতো ভাই শাহাদত অটোরিকশাচালক। প্রায় ১৫ দিন আগে ভাড়া নিয়ে বিরোধের জেরে পান্নু মোল্লা শাহাদতকে মারধর করেন। মাসুমের কাছে নালিশ দেওয়া হলে সে শাহাদতকে সঙ্গে নিয়ে পান্নু মোল্লার বাড়িতে যায় ঘটনা জানার জন্য। এ সময় পান্নু মোল্লা তাদের দু'জনকে মারধর করেন। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী গত বুধবার সকালে পান্নু মোল্লাকে মারধর করে মাসুম ও তার সহযোগীরা। 

এ ঘটনা পুঁজি করে টাকা ছিনতাইয়ের মিথ্যা মামলা করা হয়। পরে পান্নু মোল্লার কাছে ছিনতাইয়ের দেড় লাখ টাকার উৎস জানতে চাওয়া হলে তিনি মিথ্যা মামলা করার কথা স্বীকার করেন।