মানিকগঞ্জের সিংগাইরে তাবলীগ জামাতের মুসল্লির পর এবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

তার বয়স (৪৫)। তিনি ঢাকার মিরপুরের টোলারবাগে থাকেন। তাকে ঢাকার উত্তরায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই নারীর স্বামীও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পা কর্মকর্তা ডা. মো. সেকেন্দার আলী মোল্লা জানিয়েছেন।  

ডা. মো. সেকেন্দার আলী মোল্লা জানান, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক পদে কর্মরত ওই নারী গত ২৬ মার্চ সর্বশেষ অফিস করেন। অসুস্থতাজনিত কারণে এরপর আর তিনি অফিসে আসেননি। জ্বর-সর্দি কাশির মতো উপসর্গ দেখা দিলে শনিবার আইইডিসিআরে গিয়ে করোনা টেস্ট করেন তিনি। পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। 

তিনি আরো জানান, ওই নারীর টোলারবাগের যে বাড়িতে থাকতেন নেই বাড়িটি লকডাউন করেছে প্রশাসন। তার সংস্পর্শে আসা সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ১১ জনকে হোম কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। 

এ দিকে শনিবার রাতে তাবলীগ জামাতের এক মুসল্লি করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর সিংগাইর পৌরসভা লকাডউন ঘোষণা করা হয়েছে।

সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুনা লায়লা জানান,  গত ২৪ মার্চ থেকে ১২ সদস্যর একটি তাবলীগ জামাতের দল সিংগাইরে জামাতে এসেছিলেন। তাদের মধ্যে একজন করোনা পজিটিভ হওয়ায় বাকি ১১ সদস্য ও স্থানীয় ৬ সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। শনিবার রাতে থেকে পৌর এলাকাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

সিভিল সার্জন আনোয়ারুল আমীন আখন্দ জানান, তাবলীগের ১২ সদস্য, মসজিদের ইমাম এবং ওই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রোববার বিকেলে কথা বলেছেন আইইডিসিআরের প্রতিনিধি দল। এরপর সিংগাইর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ১১ জনের সাথেও কথা বলে আইইডিসিআরের প্রতিনিধি দল।