বরিশালে আপন চাচাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে ভাতিজা। বাড়ির পুকুরে মাছ ধরা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার বিকালে চাচাকে নিজ বাড়িতে কোপানো হয়। রাতে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে বরিশাল বিমানবন্দর থানার ওসি জাহিদ বিন আলম এসব তথ্য জানান। 

নিহত আবুল হাসানাত তৈমুর (৪২) বরিশাল সদর উপজেলার সোলনা গ্রামের তুলাতলা এলাকার ঘোষের বাড়ির মৃত হাতেম আলী হাওলাদারের ছেলে। তৈমুরের বড় ভাই অ্যাডভোকেট আহসান হাবিবের ছেলে রুম্মান তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।  

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আবুল হাসানাত তৈমুর সোলনা গ্রামে পৈত্রিক বাড়িতে থাকেন। তার বড় ভাই অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব থাকেন বরিশাল নগরীতে। ২-৩ দিন আগে তৈমুর বাড়িতে ভাই আহসান হাবিবের পুকুর থেকে মাছ ধরেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে আহসান হাবিবের ছেলে রুম্মান বাড়িতে গিয়ে মাছ ধরা নিয়ে চাচার সঙ্গে ঝগড়া করে নগরীতে ফিরে যায়। বিকাল পৌনে ৫টার দিকে দুই বন্ধুকে নিয়ে রুম্মান ফের বাড়িতে যায়। আবার চাচার সঙ্গে ঝগড়ার এক পর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তৈমুরের পিঠে তিনটি কোপ দিয়ে রুম্মান ও তার সহযোগী মোটরসাইকেলে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তৈমুরকে উদ্ধার করে বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান।