নবীগঞ্জে যুবলীগকর্মীর গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ টিসিবির পণ্য জব্দ

প্রকাশ: ১৭ এপ্রিল ২০২০     আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০২০   

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

ছবি: সমকাল

ছবি: সমকাল

নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ বাজারে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও যুবলীগকর্মী নোমান হোসেনের কয়েকটি গুদাম ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে টিসিবির বিপুল পরিমাণ সয়াবিন তেল, চিনিসহ অবৈধ ভারতীয় সিগারেট জব্দ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নবীগঞ্জ উপজেলা ও জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনর ‍উদ্যোগে পাঁচ ঘণ্টা ব্যাপী এই অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানে অংশ নেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল, নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান, জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়াসির আরাফাত, জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইফতেখার চৌধুরীসহ দুই থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্য।

এ সময় নোমান হোসেনের ভাইসহ ৫ জনকে আটক করে প্রশাসন। পরে নবীগঞ্জ থানার পুলিশ আটককৃতদের  জগন্নাথপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। অভিযানের খবর পেয়ে নোমান হোসেন পালিয়ে যায়।

জগন্নাথপুর উপজেলার আলীগঞ্জ বাজার গুদাম থেকে জবন্দকৃত পণ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- টিসিবির ৭৩ বস্তা চিনি, ৫ লিটারের ১৯৬ পিস সয়াবিন তেল, চিনি ৬ বস্তা, টিসিবির চিনির খালি বস্তা ৯টি। ইনাতগঞ্জ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গুদাম থেকে পাওয়া যায় টিসিবির ৫ লিটার সয়াবিন তেল, টিসিবির লেভেল ছাড়া চিনির খালি কার্টুন ৩ টি, ৫ লিটার সয়াবিন তেল।  

অভিযানের সময় জনসাধারণ প্রশাসনের উপস্থিতিতে ইনাতগঞ্জ বাজারে উপস্থিত হয়ে ব্যবসায়ী নোমান হোসেনকে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি ইনাতগঞ্জ পূর্ব বাজার থেকে শুরু করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়।

নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল জানান, আমাদের কাছে খবর আসে ব্যবসায়ী নোমান হোসেন খোলা বাজারে টিসিবি পণ্য বিক্রি করছেন। সরেজমিনে এসে আমরা সত্যতা পাই। পরে পাশের জগন্নাথপুর থানায় তার একটি গগুদাম ঘর থাকায় জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে যৌথ অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান টিসিবি পণ্য উদ্ধার করি। জগন্নাথপুর ও নবীগঞ্জ উভয় থানায়ই মামলা করা হবে। 

এ ব্যাপারে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম সমকালকে বলেন, 'নোমান আমাদের কমিটির কোনো পদে নেই। তবে সে যুবলীগের কর্মী।'