কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের রঘুরায় মাস্টারপাড়া গ্রামে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ৪৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

রোববার রাত ১০ টার দিকে তিনি মারা যান।

এ খবর পাওয়ার পর রাত ১২ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুভাষ চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে স্বাস্থ্য বিভাগের একটি টিম ওই মৃত ব্যক্তি ও তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করেন। সংগৃহিত নমুনা সোমবার পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে স্হাপিত পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। 

সোমবার সকাল ৮টায় প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা উদ্যোগ নিয়ে বাড়ির সামনে তার মরদেহ দাফন করেন।

দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবেদ আলী সরকার জানান, ওই ব্যক্তি বেশ কিছুদিন আগে কাজ করার জন্য টাঙ্গাইল গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তিনি গত ১০ এপ্রিল বাড়িতে ফিরে আসেন। বাড়ি ফিরে আসার পর থেকে তাকে, তার স্ত্রী ও এক সন্তানকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। 

তিনি আরও জানান, তার সংসার চালানোর জন্য স্হানীয়ভাবে সংগ্রহ করে সাড়ে ৩ হাজার টাকা এবং ১০ কেজির বেশি চাল দেওয়া হয়েছে। এ অবস্হায় তিনি কয়েক দিন আগে জ্বর-সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হন এবং রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, মৃত ব্যক্তির জ্বর, সর্দি ও কাশি ছিল বলে তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

 এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কাদের জানান, মৃত ব্যক্তির বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছে। এখন নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পাওয়ার পর পরিবারের অন্য সদস্যদের বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্হা নেওয়া হবে।