পারিবারিক বিরোধের জেরে জান্নাতুল নাঈম রিতু (২৭) নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। সোমবার ভোর রাতে সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুরস্থ তাদের ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। এতে আহত রিতুকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী আবু বকর সিদ্দিক ও তার ভাই রুহুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে গৃহবধূ রিতু বাদি হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। আবু বকর সিদ্দিক সাতক্ষীরার কলারোয়া সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক।

আহত গৃহবধূ জান্নাতুল নাঈম রিতু অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন- ‘প্রায় চার বছর পূর্বে শ্যামনগর উপজেলার নকিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম মাহমুদপুর গ্রামের ঈমান আলী গাজীর ছেলে আবু বকর সিদ্দিকের সাথে বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট থানার আট্রক ইউনিয়নের ছোটবাহিরদিয়া গ্রামের মৃত মিজানুর রহমানের মেয়ে জান্নতুল নাঈমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ঘরে একটি কন্যা সন্তান আসে। বর্তমানে তার বয়স ২ বছর। বিয়ের পর স্বামী আবু বকর বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে রিতুর বাবার কাছ থেকে যৌতুক হিসেবে প্রায় ১২ লাখ টাকা আদায় করেছে। সম্প্রতি সে আরও ৫ লাখ টাকা দাবি করে। রিতুর বাবা দিতে অস্বীকার করায় সোমবার ভোর রাতে সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুরস্থ ভাড়া বাসায় ফেলে স্বামী আবু বকর সিদ্দিক ও দেবর রুহুল কুদ্দুস রিতুকে বেধম মারপিট করে আহত করে। আবু বকর ধারালো ছুরি দিয়ে রিতুকে জবাই করতে আসে। এতে রিতু প্রাণ ভিক্ষার জন্য ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে সে তার বাম হাতে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এ সময় দেবর রুহুল কুদ্দুস রিতুকে লোহার রড দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। এতে সে অজ্ঞান হয়ে গেলে প্রতিবেশিরা তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। রিতুর বাম হাতে ১৫টা সেলাই দিতে হয়েছে’।

আহত রিতুর ভাই সাজিদ বলেন- ‘আমার বোনকে প্রায় নির্যাতন করে তার স্বামী। সোমবার ভোরে বোনের উপর নির্যাতনের কথা জানতে পেরে আমি সাতক্ষীরাতে এসে বোনকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতলে ভর্তি করি। আমরা থানায় অভিযোগ দিতে গেলে তারা আমাকেও মারপিট করে থানায় প্রবেশে বাঁধা দেয়’।

এ বিষয়ে কলেজ শিক্ষক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ‘আমার স্ত্রীর সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে সকালে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে সে নিজের হাত নিজেই কেটে আমার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছে’।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান জানান, আহত গৃহবধূ রিতু থানায় তার স্বামী আবু বকর সিদ্দিক, দেবর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে এজাহার দাখিল করেছেন। পুলিশ অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।