বগুড়ায় অবশেষে করেনাভাইরাস শনাক্তকরণ কার্যক্রম শুরু হলো। সোমবার দুপুরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের (শজিমেক) মাইক্রোবায়লোজি বিভাগে পিসিআর (পলিমার চেইন রি-অ্যাকশন) ল্যাব উদ্বোধন করা হয়।

কিছু আনুষ্ঠানিকতার কারণে উদ্বোধনী দিনে বগুড়া জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মাধ্যমে সংগৃহিত কোন নমুনা নতুন ওই ল্যাবে পাঠানো হয়নি। তবে সেখানে স্থানীয়ভাবে ৪ ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়। 

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার থেকে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মাধ্যমে সংগৃহিত নমুনাগুলো শজিমেকের ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। 

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুস্তাফিজুর রহমান তুহিন জানিয়েছেন, ১৯ এপ্রিল সংগ্রহ করা ৩৭টি নমুনা শেষবারের মত রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পাঠানো হয়। এরপর ২০ এপ্রিল থেকে সংগৃহিত নমুনাগুলো যথারীতি শজিমেক ল্যাবে পাঠানো হবে। 

শজিমেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. রেজাউল আলম জুয়েল জানান, মঙ্গলবার থেকে নতুন ওই ল্যাবে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার কাজ চলবে। তিনি বলেন, প্রতিদিন ৯৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হবে। বগুড়া ছাড়াও আশপাশের জেলাগুলোর নমুনাও এখানে পরীক্ষার সুযোগ রয়েছে।