লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় খাদ্য অধিদপ্তরের সিল দেওয়া ১২০ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার ভোর রাতে উপজেলার সির্ন্দুনা ইউনিয়নের লোকমান হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি গোডাউন থেকে এই চাল উদ্বার করা হয়। এ ঘটনায় দুখু মিয়া (৩৫) নামের এক ভটভটি চালককে আটক করেছে পুলিশ।

আটক দুখু মিয়া কালীগঞ্জ উপজেলার মদাতী গ্রামের ফরহাদ হোসনের ছেলে। তবে আটককৃত চাল নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। চালের বস্তায় খাদ্য অধিদপ্তরের সিল থাকলেও চাল সরকারি কি-না তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রোববার গভীর রাতে চাল ব্যবসায়ী শাহাজান আলীর ভাড়া নেওয়া গোডাউনের সামনে একটি খালি  ভটভটি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে স্থানীয়দের মাঝে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল ইসলাম পুলিশকে সাথে নিয়ে গোডাউনের তালা ভেঙ্গে ১২০ বস্তা চাল উদ্ধার করেন। চালের বস্তায় ‘শেখ হাসনিার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ, খাদ্য অধিদপ্তর’ সিল সম্বলিত লেখা রয়েছে। এ সময় ভটভটি চালক দুখু মিয়াকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তবে ব্যবসায়ী শাহাজান আলীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তদন্ত নজির হোসেন ২৫ কেজি ওজনের ১২০ বস্তা চাল উদ্ধারের কথা স্বীকার করে বলেন, উল্লাস নামের এক ব্যক্তি ভটভটি চালক দুখু মিয়াকে ডেকে এনেছে। এ ব্যাপারে একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। তদন্ত করে মামলা দায়ের করা হবে।

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল ইসলাম সমকালকে বলেন, আটককৃত চালের বস্তার এক পাশে খাদ্য অধিদপ্তরের সিল ও অন্যপাশে ‘ইনশাল্লাহ রাইস মিলের’ নাম লেখা থাকায় চাল নিয়ে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর সমকালকে বলেন, আটককৃত চাল সরকারি কি-না তা এই মুহূর্তে বলা যাবে না। তদন্তে সব কিছু বের হয়ে আসবে।