গোপালগঞ্জে ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন নারীরা

প্রকাশ: ০৫ মে ২০২০   

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় শ্রমিক সংকটের কারণে ‘চাষির হাসি সেল’ এর নিবন্ধনকৃত নারী শ্রমিকরা ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন। সোমবার থেকে উপজেলার বাগান উত্তরপাড়া গ্রামে শিলা বাড়ৈর নেতৃত্বে ৩০ সদস্যের একদল নারী শ্রমিক আনুষ্ঠানিকভাবে ওই গ্রামের কৃষকদের ধান কাটা শুরু করেন।
কোটালীপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিতুল রায় জানান, এ উপজেলার কৃষকের প্রধান ফসল বোরা ধান। এ ধান দিয়েই তাদের সারা বছর চলে। কিন্তু লকডাউনের কারণে ধানকাটা শ্রমিক সংকট দেখা দেওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মাহফুজুর রহমান ‘চাষির হাসি সেল’ নামে একটি ফেসবুক পেজ খুলে ধান কাটার জন্য শ্রমিকদের রেজিষ্ট্রেশন শুরু করেন ।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জানান, এ সেলে এরই মধ্যে যুবক, ছাত্র, শিক্ষক, বেকার শ্রমিক,কৃষক ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রায় এক হাজার মানুষ রেজিষ্ট্রেশন করেছেন। তিনি বলেন, তালিকাভুক্ত শ্রমিকরা মজুরিতে বা স্বেচ্ছাশ্রমে কৃষকের ধান কেটে দেবেন। এরই ধারাবাহিকতায় নারীদের একটি টিম ধান কাটা শুরু করেছে।
ওই কৃষি কর্মকর্তা আরো জানান, এ বছর এ উপজেলায় ২৪ হাজার ৫২০ হেক্টর জমিতে বোরো ধনের আবাদ হয়েছে। অর্ধেক জমির ধান রিপার মেশিন ও কম্বাইন্ড হারভেস্টার দিয়ে কাটা হবে। বাকী জমির ধান শ্রমিক দিয়ে কাটতে হবে। তিনি বলেন,‘চাষির হাসি সেল’এর মাধ্যমে কৃষকরা তাদের জমির ধান কাটতে শ্রমিক নিতে পারছেন।
কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মাহফুজুর রহমান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে ধান কাটা শ্রমিক সংকট দেখা দেয়ায় কৃষকের ধান কেটে দিতে‘চাষির হাসির সেল’ফেসবুক পেজ এর মাধ্যমে শ্রমিকদের রেজিষ্ট্রেশন করা হয়। তিনি জানান, কৃষি বিভাগের মাধ্যমে এ সেলে টার্গেট শ্রেণির মানুষ রেজিস্ট্রেশন করেছে। এরই মধ্যে নারীদের একটি দল ধান কাটা শুরু করেছে। তিনি বলেন, এ রকম অসংখ্য টিম ধান কাটতে মাঠে নামতে প্রস্তুত রয়েছে। এতে কৃষক ও এলাকার কর্মহীন মানুষ উভয়েই উপকৃত হবেন।