রাঙামাটিতে ৭ পুলিশ সদস্যসহ আরও ১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৬ জনে।

রাঙামাটি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনা বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডা. মোস্তফা কামাল তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান,  গত শনিবার রাতে চট্টগ্রাম ভেটেনারি ও এ্যানিমেল সায়েন্স (সিভাসু) থেকে  ১০ জনের নমুনার পরীক্ষার ফল করোনা পজিটিভ এসেছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে মানিকছড়ি পুলিশ ফাড়ির ৩ পুলিশ সদস্য, ১ বাবুর্চি, বেতবুনিয়া পুলিশ ফাড়ির ৩ পুলিশ সদস্য রয়েছেন। এছাড়া লংগদু ,কাউখালী উপজেলার ১ জন করে এবং রাঙামাটি শহরের টিএন্ডটি এলাকায় ১জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

তিনি আরো জানান, রাঙামাটি থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য এ পর্যন্ত ৮৬৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে সিভাসু-তে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৫৬ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন এবং ৬ জনকে রাঙামাটি হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। বাকী ৪৫ জন  হোম  আইসোলেশনে   রয়েছেন।

উল্লেখ্য, রাঙামাটিতে সর্ব প্রথম গত ৬ মে ১ জন নার্সসহ ৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। ১২ মে আক্রান্ত নার্সের সংস্পর্শে আসা আরো একজনের নমুনা পরীক্ষায় ফল করোনা পজিটিভ আসে।  এরপর ১৩ মে  রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ১ জন চিকিৎসক ও বেসরকারি হাসপাতালের ১ জন চিকিৎসকের করোনা শনাক্ত হয় । এছাড়া বিলাইছড়ি উপজেলায় ২ জন, রাজস্থলী উপজেলায় ১ জনসহ ৯ জনের করোনা পজিটিভ আসে। ১৪ মে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের ১ জন নার্স ও ১ জন আয়া, জুরাছড়িতে ৬ জন এবং লংগদুতে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয় । ১৬ মে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ১ জন নার্সের করোনা পজিটিভ আসে।  গত ১৯ মে ১জেলায় ৭ জনের করোনা পজিটিভ আসে এবং ২২ মে ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে একজন সরকারি চিকিৎসকসহ ৩ জন চিকিৎসক ও রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের ৪জন নার্স রয়েছেন। গত শুক্রবার বেসরকারি হাসপাতালের এক কর্মীসহ ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়।