ভারতের কেরালায় অন্তঃসত্ত্বা হাতি হত্যার ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার রাজ্যটির বনমন্ত্রী কে রাজু গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বনমন্ত্রী বলেন, 'আজ একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই মামলায় আরও অনেকে অভিযুক্ত। তাদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।'

হাতি মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ ও বন দফতর যৌথ তদন্ত চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। সেই তদন্তের অগ্রগতি যথেষ্ট ভালো বলেও দাবি করেছেন তিনি।

খাবারের সন্ধানে সম্প্রতি কেরালার সাইলেন্ট ভ্যালি জাতীয় উদ্যান থেকে মল্লপুরমের লোকালয়ে চলে এসেছিল অন্তঃসত্ত্বা ওই হাতি। স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে বিস্ফোরক ভর্তি আনারস খেতে দেয়। সেটি মুখে পুরতেই বিস্ফোরণ ঘটে। যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে আহত হাতিটি। কিন্তু কারও কোনো ক্ষতি না করে যন্ত্রণা উপশমের চেষ্টায় সে ভেলিয়ারি নদীতে গা ডুবিয়ে পড়ে থাকে। ওভাবে দিন কয়েক পর ২৭ মে তার মৃত্যু হয়। বন বিভাগে কর্মরত এক ব্যক্তি মারফত খবরটি প্রচার পায়। ক্রমেই জানা যায়, গত এপ্রিল মাসেও এই ধরনের ক্ষত নিয়ে মৃত্যু হয়েছিল আরও এক হাতির।

স্থানীয় কৃষকেরা বন্য শুয়োরের হাত থেকে ফসল বাঁচাতে ফলের ভেতর ছোট ছোট পটকা বেঁধে রাখেন। ফসল খেতে গেলে সেই পটকা ফাটে, যাতে বন্য শুয়োররা ভয় পেয়ে পালায়।

হাতির মৃত্যুর খবর জানাজানি হতে না হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে সারা দেশ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বয়ে যায় নিন্দার ঝড়। অপরাধীদের কঠোর শাস্তির দাবিতে মুখর হতে থাকেন সাধারণ মানুষ থেকে পরিচিত ব্যক্তিত্বরা।

মন্তব্য করুন