করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রণ ও যাত্রীদের সুরক্ষায় বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে কুমিল্লায় হাইওয়ে পুলিশ। 

হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লা অঞ্চলের উদ্যোগে জরুরি পণ্যবাহী যানবাহনের চালকদের মাঝে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হচ্ছে। চালকদের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতন কার্যক্রম পরিচালনায় মাইকিং ও লিফলেট বিতরন করছেন পুলিশের সদস্যরা।

করোনায় বিপর্যস্ত জনসাধারণকে অতিরিক্ত ভাড়ার কবল থেকে রক্ষা করতে এবং শ্রমিক সংগঠনের নামে চাঁদা দাবি বন্ধে এগিয়ে এসেছেন হাইওয়ে কুমিল্লা অঞ্চেলের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম।

কুমিল্লা জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন বি-৯৩৮ ও কুমিল্লা জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়ন ২০২৬ এর সাধারণ সম্পাদক কাজী মোতাহের হোসেন বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে মন্ত্রণালয়ে মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রাখতে হবে। এজন্য হাইওয়ে পুলিশ দায়িত্ব নিয়ে কাজ করছে।

কুমিল্লা অঞ্চলের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম বলেন, করোনাকালীন সময় যাত্রীবাহী বাস বা পণ্যবাহী ট্রাক থেকে চাঁদাবাজি বরদাস্ত করা হবেনা। পরিবহন মালিক, শ্রমিক সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দেও সাথে সভা হয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে কোনভাবেই মহাসড়কে চাঁদা আদায় করা যাবেনা। পাশাপাশি হাইওয়ে পুলিশ কোন চাঁদাবাজিতে জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।