মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা নেই, শিক্ষবোর্ড জানে না, কিন্তু একাদশ শ্রেণিতে বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শুধু তাই নয়, পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে পরীক্ষার্থীদের নিজ বাড়িতেই। রাজশাহীর তানোর উপজেলা সদরের এই কলেজটির নাম আব্দুল করিম সরকার সরকারি কলেজ।

করোনা পরিস্থিতিতে সম্প্রতি কলেজটির ফেসবুক পেইজে পোস্ট করা হয়, বার্ষিক পরীক্ষার ঘোষণা। এতে বলা হয়, ‘একাদশ শ্রেণির স্থগিত বার্ষিক পরীক্ষা সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাড়িতে অনুষ্ঠিত হবে।’ এতে কলেজ থেকে শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন ও উত্তরপত্র সংগ্রহের জন্য সময়ও জানানো হয়। পরীক্ষার রুটিনও দিয়েছেন অধ্যক্ষ।

কলেজটির একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা জানায়, অধ্যক্ষসহ অন্য শিক্ষকরা তাদের বলেছে- পরীক্ষা নিজ বাড়িতেই হবে। তাদেরকে কলেজ থেকে প্রশ্ন ও উত্তরপত্র নিয়ে যেতে হবে। তাই তারা গত ২৭  ও ২৮ জুন কলেজ থেকে খাতা ও প্রশ্ন সংগ্রহ করেছে। বাড়িতে পরীক্ষা দিয়ে তারা উত্তরপত্র কলেজে জমা দেবে।

তবে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। নিজ বাড়িতে বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়ার কোন নির্দেশনা তাদের জানা নেই। এভাবে পরীক্ষা নেওয়া হলে অনেকেই অসাধু উপায় অবলম্বন করবে।

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘বাড়িতে কিভাবে বার্ষিক পরীক্ষা হয়? এটা আবার কেমন কথা? তা ছাড়া মন্ত্রণালয় থেকে এমন কোন নির্দেশনাও আসেনি।’

তবে কলেজ অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান মিঞা বলেন, গত ২২ জুন ভিডিও কনফারেন্সে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় পেয়ে একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা শিক্ষার্থীদের নিজ বাড়িতে নিচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘জেলা প্রশাসক বলেছেন, পরীক্ষার্থীরা যদি দেখেও লেখে, তাতেও তারা পড়াশোনায়  সম্পৃক্ত হয়ে উপকৃত হবে।’

জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেন, শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় সম্পৃক্ত রাখতে তিনি উন্মুক্ত সাপ্তাহিক পরীক্ষা নেয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। তবে বার্ষিক পরীক্ষা নেয়ার কোন নির্দেশনা তিনি দেননি। তিনি বলেন, ‌‘কলেজ কর্তৃপক্ষ আমার বক্তব্য সঠিকভাবে বুঝতে না পেরে বার্ষিক পরীক্ষা নিজ বাড়িতে নেওয়ার আয়োজন করেছে।’ এই পরীক্ষা বন্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান তিনি।