নোয়াখালীতে করোনায় আরও একজনের মৃত্যু

প্রকাশ: ৩০ জুন ২০২০     আপডেট: ৩০ জুন ২০২০   

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীতে ১৬ ঘণ্টার ব্যবধানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মাহবুব মোরশেদ (৫৫) নামে আরও এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। 

সোমবার রাতে তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। 

এর আগে, রোববার রাত ৩টার দিকে শরীরে করোনায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান পুলিশ কর্মকর্তা ওমর ফারুক (৩৬)। এ নিয়ে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪৬ জনের মৃত্যু হলো। 

নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার মঙ্গলবার দুপুরে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

জানা গেছে, নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বাসিন্দা মাহবুব বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের হবিগঞ্জ জেলার গুদাম রক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

মাহবুবের স্ত্রী লায়লা নাহার জানান, মাহবুব হবিগঞ্জে কর্মরত থাকা অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়লে বাড়ি চলে আসেন। গত ১১ জুন তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেওয়া হয়। ১৪ জুন সন্ধ্যায় তার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে গত ২০ জুন তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। এরপর ঢাকার মধ্য বাড্ডার বেসরকারি এএমজেড হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। এক সপ্তাহের বেশি সময় লাইফ সাপোর্টে থাকার পর সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি মারা যান। 

এর ১৬ ঘণ্টা আগে রোববার রাতে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার নলচিরা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ও বেগমগঞ্জ উপজেলা দুর্গাপুর গ্রামের বাসিন্দা ওমর ফারুক করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। 

সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪৬ জনের মৃত্যু হলো। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৮ জন, বেগমগঞ্জে ২৩ জন, সেনবাগে ৬ জন, সোনাইমুড়ীতে ৩ জন, চাটখিলে ও কবিরহাটে ২ জন করে, সুবর্নচর ও কোম্পানীগঞ্জে ১ জন করে রয়েছে।