বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের সোনাখালী গ্রামের রুবাইত শিকদার (২৭) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে জখম ও গোপনাঙ্গ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে উপজেলার পঞ্চকরণ ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। তাকে   গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী প্রথমে মোরেলগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

রুবাইত শিকদার মৃত অজিয়ার শিকদারের ছেলে এবং ইউনিয়ন যুবলীগের একজন সক্রিয় কর্মী। পুলিশ এ ঘটনায় স্থানীয় দিনমজুর বজলুর স্ত্রী রোজিনাকে (২৫) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

এলাকাবাসী ও রুবাইতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে দুর্বৃত্তরা যুবলীগ কর্মী রুবাইতকে পাশ্ববর্তী পঞ্চকরণ ইউনিয়নে ডেকে নিয়ে হাত-পা বেঁধে কুপিয়ে এবং লিঙ্গ কর্তন করে রাস্তায় ফেলে যায়। পরে স্থানীয়রা  রুবাইতকে রাস্তা থেকে উদ্ধার করে প্রথমে মোরেলগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুব লীগের আহ্বায়ক মোজাম্মেল হক মোজাম জানান, রুবাইত যুবলীগের একজন অত্যন্ত সক্রিয় কর্মী।

মোরেলগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ কে এম আজিজুল ইসলাম জানান, রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। রুবাইতের শরীরে বেশ কিছু কোপের চিহ্ন দেখা গেছে এবং বিচ্ছিন্ন লিঙ্গ উদ্ধার করে তা সংযোজনের জন্য খুলনায় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার প্রকৃত কারণ উদঘাটনে এবং জড়িতদের ধরতে পুলিশের একটি টিম মাঠে কাজ করছে। এ ঘটনায় এখনো কোন এজাহার পাইনি।