করোনা উপসর্গ নিয়ে পবিপ্রবি ভিসি ও তার স্ত্রী বিএসএমএমইউতে

প্রকাশ: ১৪ জুলাই ২০২০   

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

সকাল বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টরযোগে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদ ও তার স্ত্রী কনিকা মাহফুজকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে -সমকাল

সকাল বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টরযোগে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদ ও তার স্ত্রী কনিকা মাহফুজকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে -সমকাল

করোনার উপসর্গে আক্রান্ত পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদ ও তার স্ত্রী কনিকা মাহফুজকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টরযোগে তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে তাদের বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে

এর আগে সোমবার বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন ভিসি ও তার স্ত্রী। তবে তাদের কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফল এখনও পাওয়া যায়নি।

পবিপ্রবির জনসংযোগ কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম জানান, করোনার উপসর্গ থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ভিসি ড. মো. হারুনর রশীদকে সস্ত্রীক ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। আগে থেকেই তিনি ডায়াবেটিস, অ্যাজমা, হাইপ্রেসার ও ফুসফুসের সমস্যাসহ বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। তাই তাদের দ্রুত ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। করোনার পরীক্ষা করতে দেওয়া হয়েছে, তবে রিপোর্ট এখনও আসেনি। সস্ত্রীক ভিসি ড. মো. হারুনর রশীদকে ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং সেখানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

এদিকে পটুয়াখালী জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সাতশ’ ছাড়িয়ে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ২০ জন আক্রান্তসহ জেলায় মোট করোনা রোগীর আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭০৮ জনে। এর মধ্যে প্রায় ৫৮ ভাগই রয়েছে জেলার সদরে আক্রান্ত। আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪০৬ জন, বাউফলে ৮১ জন, কলাপাড়ায় ৪৯ জন, গলাচিপায় ৪৬ জন, মির্জাগঞ্জে ৪৩ জন, দশমিনায় ৪৩ জন, দুমকিতে ৩৩ জন ও রাঙ্গাবালীতে ৭ জন আক্রান্ত। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৫ জনের এবং উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১৯ জন।