চরফ্যাশনে মাকে মারধরের প্রতিবাদ করায় ছোট ভাইকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২০   

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি

ভোলার চরফ্যাশনের জাহানপুর ইউনিয়নে মাকে মারধরের প্রতিবাদ করায় ছোট ভাইকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ পাওয়া গেছে আবদুল মান্নান নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে ইউয়িনের ২নং ওয়ার্ডের মেস্তুরি বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেশীরা গুরুতর আহত হান্নানসহ পরিবারের সদস্যদের উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। এঘটনায় বড়ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে আহত হান্নান জানিয়েছেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মো.হান্নান অভিযোগ করেন, বড় ভাই মান্নান তাদের বৃদ্ধা মা আছুরাকে পূর্বে একধিকবার মারধর করেছেন। গত বুধবার ভাই মান্নান তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা আছুরা বেগমকে আবারও মারধর করেন। এসময়ে মায়ের বসত ঘর কুপিয়ে তছনছ করেন। এঘটনায় মা আছুরা বাদি হয়ে বড় ভাই মান্নানকে আসামি করে শশীভূষণ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে মান্নান ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার সকালে আবারও মাকে মারধরের চেষ্টা করেন। এসময়ে তিনি মাকে মারধরের প্রতিবাদ করলে মান্নান ও তার স্ত্রী সুরামা এবং ছেলে শামিম, সুমন আলামিন এবং মেয়ে ইয়াছনুর বসত ঘরে ঢুকে তার ওপর আর্তকিত হামলা চালিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধারে এগিয়ে এলে  মা আছুরা (৭০) ও স্ত্রী রেহানাকে(৩০) পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। পরে প্রতিবেশীরা সবাইকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আছুরা অভিযোগ করেন, ছেলে মান্নান তাকে একাধিকবার মারধর করেছেন । এঘটনায় তিনি শশীভূষণ থানায় ছেলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। শুক্রবার ফের তাকে ফের মারধরের চেষ্টা করেন। এসময় তিনি তার ছোট ছেলে হান্নানের ঘরে আশ্রয় নেন। তাকে না পেয়ে বসতঘরে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে ঘর তছনছ করেন। ছোট ছেলে হান্নান এর প্রতিবাদ করলে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে মান্নান।

অভিযুক্ত মান্নান মাকে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেন। তবে ভাইকে কুপিয়ে জখম করার বিষয়ে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

শশীভূষণ থানার ওসি ( ভারপ্রাপ্ত) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, মাকে মারধরের ঘটনায় গত বুধবার একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে। শুক্রবার ভাইকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।