এক ইলিশ বিক্রি হলো ৬ হাজার টাকায়

প্রকাশ: ২৬ জুলাই ২০২০   

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি

২ কেজি ৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ -সমকাল

২ কেজি ৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ -সমকাল

বরগুনার পাথরঘাটা বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইলিশ মৎস্য বন্দর। এখানে প্রতিদিন ১ থেকে ২শ’ মেট্রিকটন ইলিশ বেচাকেনা হয়। এ বছর ইলিশের আকার বড় হওয়ায় দামও বেশি পাচ্ছেন জেলেরা। রোববার ২ কেজি ৭শ’ গ্রাম ওজনের একটি মাছ বেচাকেনা হয়েছে ৫ হাজার ৯শ’ টাকায়। এ ছাড়াও এবার এক কেজির ওপরে প্রচুর ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। তবে দাম খুব বেশি।

পাথরঘাটা বিএফডিসি পাইকারি মৎস্য বাজারে বাবুরাম কর্মকার জানান, এ বছর ইলিশ মৌসুমের প্রথমেই মাছ শিকারের ওপর ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা পালন করেছে জেলেরা। নিষেধাজ্ঞা শেষে গত ২৩ জুলাই জেলেরা সাগরে গিয়ে ইলিশ মাছ ধরা শুরু করেছে। প্রত্যেক ট্রলারে সবারই জালে ইলিশ ধরা পড়ছে। বিএফডিসি পাইকারি মাছ বাজারে ৯৯ জন আড়ৎদার। সবাই ট্রলার মালিকদের কমবেশি দাদন দিয়ে ট্রলার সাগরে পাঠিয়েছেন। তবে যেসব জেলেরা সাগরে মাছ ধরতে গেছেন তারা মালিক পক্ষকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সুখবর দিচ্ছেন। 

জেলেরা জানান, প্রত্যেক ট্রলারে ৮শ গ্রাম থেকে ২ কেজির ওপরে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বাজারে বড় সাইজের ইলিশ মাছ পাওয়া যাবে। সংখ্যায় কম হলেও আগে এই ইলিশ ঘর নদীতে ধরা পরত। এখন সাগরে বড় সাইজের ইলিশ ধরা পরছে। 

জানা গেছে, রোববার সাগর থেকে ৪টি ট্রলার বিএফডিসি পাইকারি মাছ বাজারে এসেছে। প্রত্যেক ট্রলারের জেলেরা ৮শ’ গ্রাম থেকে পৌনে ২ কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি করেছে। তবে দামটা ছিল খুব চড়া। এক কেজি ওজনের ওপরের ইলিশের মন ছিল ৪৬ হাজার টাকা এবং এক কেজি ওজনের নিচের ইলিশের মন ৩৪ তেকে ৩৫ হাজার টাকা। প্রত্যেক ট্রলারই ১২ থেকে ১৪ লাখ টাকার মাছ বিক্রি করেছে।

পাথরঘাটা বিএফডিসি আড়ৎদার সমিতির সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) মো. মারুফ হোসেন বলেন, সাগরে ৬৫ দিন ইলিশ মাছ ধরা বন্ধ থাকায় মাছের আকাড় বড় হয়ে গেছে এবং মাছগুলো কিনারের দিকে এসেছে। রোববার ইউনুচ মিয়া নামে এক জেল ২ কেজি ৭শ’ গ্রাম ওজনের একটি ইলিশ ধরেছে। মাছটি আমি প্রকাশ্যে নিলামে ৫ হাজার ৯শ’ টাকায় বিক্রি করেছি। এখন যে মাছের চড়া দাম তা আগামী সপ্তাহের মধ্যে কমে যাওার সম্ববনা রয়েছে। মাছের চাপ বাড়লে দরেরও পতন হবে।

পাথরঘাটা বিএফডিসি পাইকারি মাছ বাজারের মার্কেটিং অফিসার মোঃ অলিউল্লাহ জানান, ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওার ২/৪ দিন আগে যারা ট্রলার নিয়ে সাগরে গেছেন তারা বড় বড় ইলিশ শিকার করে ফিরে এসেছেন। গত এক সপ্তাহে এই বাজারে ৯১. ৭শ ২৪ মেট্রিকটন ইলিশ মাছ বিক্রি হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। সাগরে ঝড় বাদল যদি না থাকে তাহলে এ বছর ইলিশ আহরণের রেকর্ড আগের বছরগুলোকে ছাড়িয়ে যাবে।