মাগুরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় খলিলুর রহমান (৫০) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মীর পা শরীর থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আহত হয়েছে আরও অন্তত পাঁচজন। এ ঘটনায় ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। 

সোমবার সকালে শালিখা উপজেলার নাঘোষা গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

শালিখা থানার ওসি তরীকুল ইসলাম জানান, নাঘোষা গ্রামসহ তালখড়ি ইউনিয়নে বাসিন্দারা দুইটি রাজনৈতিক দলে বিভক্ত। এদের একপক্ষ স্থানীয় এমপি ড. শ্রী বীরেন শিকদার ও অপর পক্ষ উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট কামাল হেসেনের সমর্থক। সম্প্রতি এমপি সমর্থিত কয়েকজন দল ভেঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যানের সমর্থকদের পক্ষে যোগ দেয়। যা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়। সকালে উপজেলা চেয়ারম্যান সমর্থক আকরাম ও আলমের নেতৃত্বে এমপি সমর্থক খলিলুর রহমানের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তারা খলিলুর রহমানের বাম পা ধরালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে শরীর থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন এবং আরও ৪-৫ জনকে কুপিয়ে আহত করেন। হমলাকারীরা ২-৩ টি বাড়িঘরও ভাংচুর করেন। 

তিনি আরও জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে আটক করেছে এবং খলিলুর রহমানসহ আহতদের উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক রেজাউল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে খলিলুর রহমানের পায়ে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তবে বাম পায়ের গোটা রগ কেটে পা চামড়ায় বেধে থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।