বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে শিমুল হোসেন (৩০) নামের এক হোটেল শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ চারজনকে আটক করেছে।

বুধবার রাতে সান্তাহার মাল গুদামের পাশে বিসমিল্লাহ হোটেলের দই তৈরির কারখানায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। 

শিমুল হোসেন উপজেলার সান্তাহার হলুদঘর এলাকার শাহজাহান আলীর ছেলে। 

জানা গেছে, শিমুল সান্তাহারস্থ বিসমিল্লাহ হোটেল ও তাদের দই তৈরির কারখানায় কর্মচারী হিসেবে প্রায় ৪ বছর যাবৎ কাজ করছিলেন। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় বাড়ি থেকে তিনি কর্মস্থলে আসেন।বুধবার সারাদিন কাজ শেষে দই তৈরি কারখানায় ঘুমিয়ে পড়েন। বৃহস্পতিবার সকালে ওই ঘরে শিমুলের মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। বেলা ১১টায় পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠায়। 

নিহতের বাবা শাহজাহান আলী জানান, তার ছেলে মঙ্গলবার বাড়ি থেকে যাওয়ার পর তার সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি। তাকে শক্রতামূলকভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

আদমদীঘি থানার ওসি জালাল উদ্দীন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। মরদেহের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে প্রকৃত হত্যারহস্য জানা যাবে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিসমিল্লাহ হোটেলের চার কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।