চট্টগ্রামের শহীদ নগর এলাকায় স্বামীকে অটোরিকশায় বেঁধে রেখে স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মূলহোতা পুলিশের সোর্স শফি চার দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি। শনিবার রাত ২টার দিকে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে শহীদ নগর এলাকার সালমা কলোনিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ওই নারীও ও তার স্বামীকে উদ্ধার করে। 

মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (বায়েজিদ জোন) পরিত্রাণ তালুকদার বলেন, অভিযান চলছে। শফিকে খুব শিগগির গ্রেপ্তার করা হবে।

পুলিশ জানায়, এরই মধ্যে গ্রেপ্তার চার ধর্ষক আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। তারা হলো বাদশা মিয়া, মো. জাবেদ, মো. রবিন ও মো. ইব্রাহীম। তারা সবাই সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক।

পুলিশ আরও জানায়, শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওয়াপদা গেট থেকে বাসায় ফেরার পথে নগরীর অক্সিজেন মোড়ের আলপনা কমিউনিটি সেন্টারের কাছে শফি নামের এক যুবক ওই দম্পতির পরিচয় জানতে চায়। একপর্যায়ে তাদের কাছে চাঁদা দাবি করে। 


ওই দম্পতি চাঁদা না দেওয়ায় তাদের বিয়ে পড়ানো হুজুরের (কাজি) কাছে নিয়ে যেতে বলে। এই ফাঁকে শফি ফোন করে বাদশা, জাবেদ, রবিন ও ইব্রাহীমকে ডেকে আনে। তারা এসে অটোরিকশায় ওই দম্পতিকে শহীদ নগর এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে তাদের কিছুক্ষণ ঘুরিয়ে সালমা কলোনির একটি বাসায় নিয়ে গিয়ে স্বামীকে অটোরিকশায় বেঁধে স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে পুলিশের একটি দল রাত ২টার দিকে সেখানে গিয়ে স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে।