ঢাকার ধামরাইয়ের নান্নার ইউনিয়নের গোপালপুর সিলেটপাড়া গ্রামে ঘরের মধ্যে থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার সকালে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

জানা গেছে, ধামরাইয়ের গোপালপুর সিলেটপাড়া গ্রামের মুনছের আলীর ছেলে জুয়েল হোসেন (২৩) প্রায় ২ বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করেন টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলার পিটেশ্বরী গ্রামের জসিম উদ্দিনের মেয়ে রুমি আক্তারকে। জুয়েল পেশায় রাজমিস্ত্রী ছিলেন। এক মাস বাবার বাড়ি থাকার পর বুধবার বিকেলে রুমি তার শ্বশুরের সঙ্গে স্বামীর বাড়িতে আসেন। বুধবার রাতে তারা খাবার খেয়ে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। সকালে ঘুম থেকে না উঠলে স্থানীয়রা ঘরের দরজা ভেঙে স্বামী-স্ত্রীর দুজনের মরদেহ খাটের উপর দেখতে পান। পরে ধামরাই থানা পুলিশ খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। 

রুমির চাচা ওয়াসিম জানান, বিয়েতে আমাদের মত ছিল না এবং মাঝে মধ্যেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া লাগত।

ধামরাই থানার এসআই রিপন আহম্মদ বলেন, স্ত্রীর মরদেহের ওপর স্বামী মরদেহ পড়েছিল এবং তাদের দুইজনের মুখেই বিষের গন্ধ পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, তারা পারিবারিক কলহের জের ধরে আত্মহত্যা করেছেন। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

ধামরাই থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।