শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় দাফনের ৬৫ দিন পর আদালতের নির্দেশে ময়নাতদন্তের জন্য উসমান আলী (২৫) নামের এক যুবকের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমানের উপস্থিতিতে লাশটি উত্তোলন করা হয়।

উসমান আলী উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের বড়ডুবি এলাকার আবুল হাসেমের ছেলে। 

আদালত ও উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, গত ১৬ জুলাই রাতে নিজ বাড়ির গোয়াল ঘরের পাশ থেকে উসমান আলীর লাশ উদ্ধার হয়। পরদিন ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করা হয়। পরে ওই ঘটনায় গত ১৭ আগস্ট ৪ জনকে আসামি করে আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন উসমানের বড় ভাই আছিমদ্দিন।

 নিহতের বড় ভাই ও মামলার বাদী বলেন, 'আমার ভাইকে আসামিরা টাকার জন্য হত্যা করেছে। এমনকি আমাদের পারিবারিক গোরস্থানে দাফনও করতে দেয়নি তারা। আমি আসামিদের গ্রেফতার ও বিচার চাই।'

শেরপুরের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, 'আদালতের নির্দেশে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে কবর থেকে উসমানের লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।'

লাশ উত্তোলনের সময় জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নালিতাবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) জোবায়ের হোসেনসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।