রংপুরের ছাত্রলীগ নেতা রনির বিরুদ্ধে বিয়ের নামে প্রতারণার অভিযোগ

প্রকাশ: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন প্রতারণার শিকার ভুক্তভোগী স্কুলশিক্ষিকা তানিয়া আক্তার- সমকাল

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন প্রতারণার শিকার ভুক্তভোগী স্কুলশিক্ষিকা তানিয়া আক্তার- সমকাল

রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রনির বিরুদ্ধে প্রতারণামূলক বিয়ে, নির্যাতন, মিথ্যা মামলা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করেছেন তানিয়া আক্তার নামে এক স্কুলশিক্ষিকা। রনি ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রাণনাশের হুমকিতে পরিবারসহ জীবন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তানিয়া। 

এই পরিস্থিতিতে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ রনির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তানিয়া আক্তার এসব কথা জানান। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রনি 'অতি গোপন' করার শর্ত জুড়ে বিয়ের কথা বললে আমি প্রথমে মানা করি। কিন্তু রনি তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের বিষয়টি নিয়ে নানাভাবে বোঝাতে শুরু করে এবং ছাত্রলীগের মেয়াদকাল শেষ হওয়া মাত্রই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্নের কথা বললে আমি বিয়ে করতে রাজি হই। গত বছরের ১৮ এপ্রিল নীলফামারী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সজল কুমারের বাড়িতে রনির পরিচিত কাজি ও সাক্ষীর উপস্থিতিতেই আমাদের বিয়ে হয়।

হঠাৎ রনি তার ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার সময় ঘনিয়ে এলে আমাকে ২০ লাখ টাকা জোগাড় করতে চাপ দিতে থাকে। সে কোনো কথাই শুনতে চায় না বরং আমাকে আরও ২০ লাখ টাকা জোগাড় করতে বারবার মানসিক চাপের পাশাপাশি মাঝেমধ্যে শারীরিক নির্যাতনও শুরু করে। শুধু তাই নয়, সে অন্যত্র বিয়ে করার জন্য পাত্রী দেখতে যাওয়ার খবরটি আমি জেনে প্রশ্ন করায় আমাকে নির্মমভাবে শারীরিক আঘাত করে। এ অবস্থায় কোনো উপায় না পেয়ে মামলা করেন বলে তানিয়া জানান।

তানিয়া আরও বলেন, মামলা করার পর থেকে তাকে হত্যার হুমকি, মামলা তুলে নিতে তিনিসহ তার পরিবারের সবাইকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, তিনি র‌্যাবের কাছে আইনি সহায়তা চাওয়ায় উল্টো তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাও করা হয়েছে।