তথ্য ও যোগযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের মাধ্যমে আগামী দুই বছরের মধ্যে প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানে দুই থেকে তিন হাজার ব্যক্তির কর্মসংস্থান হবে। প্রতি বছর প্রশিক্ষণ, ইনকিউবেশন, স্টার্টআপ বিভাগে তারা কাজ করবেন। ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে ২০৪১ সাল নাগাদ আমরা ১০ লাখ তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেব এবং ৫ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান নিশ্চিত করব। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুরের পীরগঞ্জ লালদিঘিতে নির্মাণাধীন শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক, হাইটেক পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এক সময়ের অবহেলিত উত্তরবঙ্গের বেকারদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে রংপুরকে ডিজিটাল ইকোনমিক হাব করবে সরকার। রংপুরের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব গড়ে তোলা হবে। স্কুুল অব ফিউচার নামে নতুন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রত্যেকের সন্তান যেন ডিজিটাল দুনিয়ার সঙ্গে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে পারে, সে জন্য দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

এর পর পীরগঞ্জ উপজেলা অডিটোরিয়ামে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।