মিন্নি প্রসঙ্গে যা বললেন আদালত

প্রকাশ: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০     আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০   

আবু জাফর সালেহ্, বরগুনা

আদালত প্রাঙ্গনে আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি- সমকাল

আদালত প্রাঙ্গনে আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি- সমকাল

বরগুনার বহুল আলোচিত শাহ নেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করে বলেন, রিফাত শরীফকে খুনের ঘটনায় এই মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত সব আসামিই সমান দায়ী।

রায়ে আদালত বলেন, 'মো. রাকিবুল হাসান রিফাত ওরফে রিফাত ফরাজী, আল কাইয়ূম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, মো. রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয়, মো. হাসান, নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি পূর্বপরিকল্পিতভাবে রিফাত শরীফকে হত্যার অভিন্ন উদ্দেশ্য পূরণের জন্য এই হামলার ঘটনা ঘটিয়ে তাকে খুন করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে, যা সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে।'

আদালত আরও বলেন, 'কতিপয় ব্যক্তি মিলে তাদের অভিন্ন উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য কোনও অপরাধ করলে সেই অপরাধের জন্য তাদের প্রত্যেকে, সে একা ওই কাজ করলে যেভাবে দায়ী হতো ঠিক সেইভাবেই দায়ী হবে। এ হিসেবে এই মামলার রিফাত শরীফকে খুনের ঘটনায় সব আসামিই সমানভাবে দায়ী।'

রায়ে আদালত বলেছেন, 'প্রকাশ্যে দিবালোকে সনাতনী অস্ত্র ও রামদা দ্বারা কুপিয়ে সংঘটিত এই নির্মম হত্যাকাণ্ড মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে। নির্মম হত্যাকাণ্ড সংঘটনকারী আসিমিরা প্রত্যেকে যুবক। তথ্য প্রযুক্তি ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমের বদৌলতে যুবসমাজসহ দেশ বিদেশের সব বয়সের মানুষ তাদের নির্মমতা প্রত্যক্ষ করেছে। এমতাবস্থায়, তাদের দৃষ্টাষ্টমূলক শাস্তি না হলে তাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে দেশের যুবসমাজ ভুল পথে অগ্রসর হওয়ার আশঙ্কা থাকবে। তাই আসামিদের দৃষ্টাষ্টমূলক শাস্তি হওয়া বাঞ্চনীয়।'

গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শাহ নেওয়াজ রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পরদিন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১৩ জনের বিরুদ্ধে বরগুনা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

বুধবার রিফাত হত্যা মামলায় মিন্নিসহ ৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া ৪ আসামি খালাস পেয়েছেন। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯) ও আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯)।