চিটাগং শপিং কমপ্লেক্স সম্প্রসারণে বিশেষজ্ঞ পরামর্শ উপেক্ষা?

প্রকাশ: ১২ অক্টোবর ২০২০     আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০২০   

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন বিশেষজ্ঞ কমিটির পরামর্শ উপেক্ষা করে চিটাগং শপিং কমপ্লেক্সে স্থাপনা নির্মাণের অনুমতি দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ও শপিং কমপ্লেক্স ব্যবসায়ী সমিতির নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এই অনুমতি দেন সিটি করপোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

এর আগে গত ১০ সেপ্টেম্বর বিপণিবিতানটির আলো-বাতাস চলাচলের জন্য রাখা খোলা জায়গা ও পার্কিংয়ে দোকান নির্মাণ এবং ঝুঁকিপূর্ণভাবে উর্ধ্ব সম্প্রসারণের অভিযোগ এনে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন সিটি করপোরেশনের প্রশাসক। একই সঙ্গে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের একজন করে প্রকৌশলীর মাধ্যমে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি শপিং কমপ্লেক্সে আদৌ বর্ধিত স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে কি না তা জানতে চুয়েট বা বুয়েট দ্বারা পরীক্ষা করার পরামর্শ দেয়। কিন্তু পরীক্ষার আগেই বন্ধ নির্মাণ কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়ায় প্রশ্ন তুলেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম সমকালকে বলেন, ‘কিছু শর্তে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্মাণ কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। শুধু খোলা জায়গাগুলোতে স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে। এছাড়া পার্কিংসহ যেসব অননুমোদিত স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে সেগুলো অপসারণ করা, সিটি করপোরেশনের সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করা ও স্থাপনা নির্মাণের লে-আউট এবং ডিজাইন নতুন করে করার শর্তে তাদের নির্মাণ কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে।’

বিশেষজ্ঞ কমিটির পরামর্শ উপেক্ষা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কমিটি চুয়েট থেকে চেকিং এবং ভেটিং করতে পরামর্শ দিয়েছিল, যেটি সময়সাপেক্ষ এবং ব্যয়বহুল। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তা করবে না, সিটি করপোরেশনেরও সে সামর্থ্য নেই।’

এ প্রসঙ্গে বিশেষজ্ঞ কমিটির সদস্য চুয়েটের পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. রবিউল আলম সমকালকে বলেন, ‘শপিং কমপ্লেক্সের ভবনটি আদৌ বর্ধিত করা যাবে কি না তার জন্য বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে। অনেক কাজ করতে হবে, যেটি স্বল্প সময়ে নির্ণয় সম্ভব নয়। এ জন্য কমিটি পরামর্শ দিয়েছিল- চুয়েট বা বুয়েট দিয়ে ভবনটি পরীক্ষা করাতে। এখন সেটা মানবে কি মানবে না, এটা তাদের বিষয়।’

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের ২১ আগস্ট নগরের ষোলশহরে চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের সৌন্দর্যবর্ধন ও আধুনিকায়নের জন্য শামীম কর্পোরেশনকে বরাদ্দ দেয় সিটি করপোরেশনের রাজস্ব বিভাগ। অনুমোদন পেয়ে কোন ধরনের সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ না করেই বিপণিবিতানটির আলো-বাতাস চলাচলের জন্য রাখা খোলা জায়গা ও পার্কিংয়ে দোকান নির্মাণ শুরু করেন শামীম কর্পোরেশনের কর্ণধার মো. ইসমাইল। নির্মাণের আগেই নকশা দেখিয়ে দোকান বিক্রিও শুরু করেন তিনি। বিপণিবিতানটিতে দোকান রয়েছে ৩৭৫টি। নতুন করে তিন শতাধিক দোকান নির্মাণ করা হচ্ছে।

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন বলেন, ‘সৌন্দর্যবর্ধন বা আধুনিকায়নের নামে আমি কোন জঞ্জাল দেখতে বা রাখতে চাই না। শপিং কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলা ঝুঁকিমুক্ত রাখা এবং কমপ্লেক্সের পার্কিংয়ের জায়গা উন্মুক্ত রাখতে হবে।’

তিনি শপিং কমপ্লেক্সে আলো বাতাস চলাচলে যাতে বিঘ্ন না ঘটে সে ব্যাপারে সজাগ থাকার জন্য ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দেন। সিটি করপোরেশনের আইনবহির্ভূত কোন কিছু যাতে না হয় সে ব্যাপারে নজরদারী করার জন্য প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।