১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে এমপি নিক্সনের সমর্থকদের মিছিল

প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর ২০২০   

ফরিদপুর অফিস ও সদরপুর প্রতিনিধি

১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে এমপি নিক্সনের পক্ষে মিছিল হয়- সমকাল

১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে এমপি নিক্সনের পক্ষে মিছিল হয়- সমকাল

ফরিদপুরের সদরপুরে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সনে পক্ষে মিছিল হয়েছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে ২৪ ঘণ্টার জন্য উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, সদরপুর সরকারি কলেজ এলাকাসহ এক বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, পুলিশ ১৪৪ ধারার স্থানের চারপাশের সড়কে বেঞ্চ পেতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। তবে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শতাধিক ব্যক্তির একটি মিছিল নিক্সনের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মিছিল করে সদরপুর উপজেলা সদরে আসে। এতে নেতৃত্ব দেন পাশের ভাঙ্গা উপজেলার নূরাল্লাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহীন আলম সাহাবুল। মিছিলকারীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের রাস্তার বেঞ্চের ব্যারিকেড ভেঙে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে এবং উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরের দিকে এগোতে থাকে। উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে মিছিলে বাধা দেন পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। পরে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আল আমিনকে গালাগাল ও হুমকি দেওয়া এবং চরভদ্রাসনের ইউএনও জেসমিন সুলতানার সঙ্গে নিক্সন চৌধুরীর অশোভন আচরণ করার প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের একটি অংশ এই সংসদ সদস্যের বিচার দাবি করে উপজেলা পরিষদের সামনে শনিবার সকাল ১১টার দিকে মানববন্ধন আহ্বান করে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে সদরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আলম রেজা ইউএনও পূরবী গোলদারের কাছ থেকে এ কর্মসূচি পালনে লিখিত আবেদন করেন।

অন্যদিকে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য নিক্সনের সমর্থিত অপর অংশ এই সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে 'মিথ্যা' মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে একই সময় একই স্থানে পাল্টা মানববন্ধন আহ্বান করে। নিপনের পক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমান সদরপুর থানার ওসির কাছে এ কর্মসূচি পালনের জন্য আবেদন করেন গত শুক্রবার দুপুরে। একই সময়ে একই জায়গায় দুটি কর্মসূচির কারণে সদরপুরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ প্রেক্ষাপটে শনিবার সকাল ৯টা থেকে ২৪ ঘণ্টার জন্য ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন।

সদরপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূরবী গোলদার বলেন, দুটি পরস্পরবিরোধী কর্মসূচির কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে বিধায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। সকাল থেকে দু'পক্ষের সমর্থকরা তাদের কর্মসূচি পালন করার জন্য উপজেলা পরিষদের সামনে জড়ো হতে থাকেন। পরে পুলিশ তাদের ওই জায়গা থেকে হটিয়ে দেয়।

চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমান বলেন, সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে চরম মিথ্যাচার ও মামলা দায়েরের প্রতিবাদে সকালে এক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। আমরা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। কিন্তু প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করায় কর্মসূচি পালন করতে পারিনি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফকির আব্দুস সাত্তার বলেন, সংসদ সদস্য নিক্সনে গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে উপজেলা আওয়ামী লীগ সদরপুরে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয়। কিন্তু প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করায় আমরা নির্ধারিত কর্মসূচি পালন করা থেকে বিরত থাকি।

এদিকে ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা সদরে সংসদ সদস্য নিক্সনে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। শনিবার উপজেলা সদর বাজার এলাকায় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মিছিল করেন নিপন সমর্থকরা। এ মিছিলে শতাধিক ব্যক্তি অংশ নেন। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মোল্লা, সাবেক শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের, চরভদ্রাসন সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি মিজানুর রহমান প্রমুখ অংশ নেন। মিছিল শেষে দুধবাজার এলাকায় বক্তব্য দেন মিজানুর রহমান, শাহজাহান মোল্লা, রাসেল জামান ও মো. মুন্নাফ।