বগুড়ায় আওয়ামী লীগ কর্মীকে গলা কেটে হত্যা

প্রকাশ: ২১ অক্টোবর ২০২০     আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০২০   

বগুড়া ব্যুরো

মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা

মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা

বগুড়ার শিবগঞ্জে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা (৫২) নামের এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে হাত-পা ভেঙ্গে ও গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার সকালে উপজেলার পশ্চিম জাহাঙ্গীরাবাদ গ্রামে নিহতের বাড়ি সংলগ্ন পুকুর পাড় থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মোস্তাফিজার রহমান জাহাঙ্গীরবাদ গ্রামের প্রয়াত আকবর আলীর ছেলে। তিনি শিবগঞ্জ সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও একই ওয়াডের্র সাবেক ইউপি মেম্বার ছিলেন। তিনি স্থানীয় এমএবি ইট ভাটারও মালিক।

নিহতের স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে আলাদীপুরে তার ইট ভাটায় যাওয়ার কথা বলে বের হন। গভীর রাতেও বাড়ি না ফেরায় তার স্ত্রী মোস্তার মোবাইলে ফোন দিলে কেউ তা রিসিভ করেনি। বুধবার সকালে বাড়ি সংলগ্ন পুকুর পাড়ে মোস্তার মরদেহ দেখতে পান প্রতিবেশীরা। পরে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয়রা জানায়, পুকুর পাড়ে মরদেহ পাওয়া গেলেও সেখানে তাকে হত্যা করার কোনো আলামত নেই। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে অন্য কোথাও হত্যা করে মরদেহ তার বাড়ির কাছে পুকুর পাড়ে ফেলে রাখা হয়। নিহতের হাত-পায়ের রগ কাটা ছাড়াও মাথায় আঘাতের চিহ্ন এবং পা ভাঙ্গা ছিল।

স্থানীয়রা আরও জানান, মোস্তা এক সময় অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন। সে সময় তার নামে ছিনতাই, ডাকাতি, চোরাচালান ছাড়াও বিভিন্ন অভিযোগে একাধিক মামলা ছিল। পরবর্তীতে তিনি সেখান থেকে বেরিয়ে বালুর ব্যবসা শুরু করেন। গত ১০ বছরের মধ্যে তিনি এলাকায় বালুর ব্যবসা করে ইট ভাটার মালিক হন। এছাড়াও তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত হয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য হন।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান জানান, তাৎক্ষণিকভাবে হত্যার কারণ বা কারা হত্যা করেছে জানা যায়নি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।