তিন হাজার টাকার জন্য ভাড়াটিয়াকে পিটিয়ে হত্যা, বাড়িওয়ালি গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০২০   

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে বাড়ি ভাড়ার বকেয়া তিন হাজার টাকার জন্য মো. ফয়েজ (৪০) নামে এক ভাড়াটিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বাড়িওয়ালি ও তার সহযোগীরা। শুক্রবার উপজেলার পুরান বন্দর চৌধুরী বাড়ির প্রধান বাড়ি এলাকার উম্মে কুলসুমের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত ফয়েজ মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার চরবলাকী গ্রামের আবুল মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় বাড়িওয়ালি উম্মে কুলসুম, ভাড়াটিয়া মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রী শিরিনা বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে বন্দর থানার ওসি ফখরুদ্দিন ভুঁইয়া জানান, মাছ বিক্রেতা ফয়েজ তার স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে উম্মে কুলসুমের বাড়িতে সাত বছর ধরে ভাড়া থাকতেন। করোনার কারণে ব্যবসা মন্দা থাকায় তার ঘর ভাড়া সাত হাজার টাকা বকেয়া পড়ে। এই বকেয়া ভাড়া দ্রুত পরিশোধের জন্য বৃহস্পতিবার রাতে ফয়েজ ও তার স্ত্রী রোজিনা বেগমকে চাপ দেন বাড়িওয়ালি। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। ওই সময় ফয়েজ চার হাজার টাকা পরিশোধ করে দেন। কিন্তু বাকি তিন হাজার টাকার জন্য কুলসুম চাপাচাপি শুরু করেন।

শুক্রবার দুপুরে উম্মে কুলসুম তার বাড়ির অপর ভাড়াটিয়া মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে ফয়েজের কাছ থেকে তিন হাজার টাকা আদায় করতে যান। এ সময় ফয়েজ এখনই ওই টাকা পরিশোধ করা সম্ভব নয় বলে বাড়িওয়ালির কাছে আরও কিছুদিন সময় চান। কিন্তু বাড়িওয়ালি তাতে রাজি না হয়ে তাৎক্ষণিক ভাড়া পরিশোধ করতে বলেন, না পারলে বাড়ি ছাড়তে চাপ দেন। এর প্রতিবাদ করলে ফয়েজকে ধাক্কাধাক্কি করেন কুলসুম ও তার সহযোগীরা। একপর্যায়ে ফয়েজকে মারধর করেন তারা। এতে ফয়েজ অজ্ঞান হয়ে যান। তার স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে ফয়েজকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ১৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।