নীলফামারীর ডিমলায় কলেজ মাঠে গরু প্রবেশের অপরাধে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রকে বেধড়ক পিটিয়েছেন ওই কলেজের অধ্যক্ষ। গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার সদরের ডিমলা ইসলামিয়া ডিগ্রি কলেজের মাঠে পশের দক্ষিণ তিতপাড়া (কলেজপাড়া) গ্রামের আনারুল ইসলামের একটি গরু প্রবেশ করে। পরে আনারুল ইসলামের ছেলে ও নার্গিস খালেদা চৌধুরী বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র শাহরিয়ার কবীর সৈকত গরুটিকে কলেজ মাঠ থেকে বেড় করে আনতে যায়। এসময় কলেজের অধ্যক্ষ হাসিম হায়দার অপু শিশুটিকে গরুসহ আটকে  উপর্যুপরি বেত্রাঘাত করে গুরুতর আহত করেন। পরে শিশুটির চিৎকারে এলাকার লোকজন ছুটে এসে অধ্যক্ষের হাত থেকে উদ্ধার করে অভিভাবকের কাছে পৌঁছে দেয়। পরবর্তীতে শিশুটিকে গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসার জন্য ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

শিশুটির বাবা আনারুল ইসলাম জানান, তিনি ছেলেকে নির্যাতনের দায়ে অধ্যক্ষের বিচার চেয়ে ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কলেজ অধ্যক্ষ হাসিম হায়দার অপুর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি শিশুটিকে শারীরিক নির্যাতনের বিষয়টি স্বীকার করেন।