নাটোরের গুরুদাসপুরে স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন  সাবরিনা আক্তার (২৮) নামের এক নারী। রোববার সকালে গুরুদাসপুর মডেল প্রেসক্লাবে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে নাটোর আমলী আদালতে ২০১৮ সালের যৌতুক নিরোধ আইনে মামলাও করেছেন।

সাবরিনা আক্তার তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলা গাড়িষাপাড়া এলাকার সাজেদুর রহমানের ছেলে রুবেল আহমেদ (৩২) তাকে বিভিন্ন ভাবে প্রলোভন দেখিয়ে পরিবারের অগোচরে ৫ লাখ টাকা দেনমোহরে ২০১৭ সালে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাকে শ্বশুরবাড়িতে না নিয়ে একটি ভাড়াবাসায় ওঠেন এবং সেখানেই সংসার শুরু করেন। পরবর্তীতে তিনি শ্বশুরবাড়ি গিয়ে নিজেকে ওই বাড়ির পুত্রবধূ বলে দাবি করলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে গালিগালাজ ও মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এখন তার স্বামী ও ওই পরিবারের লোকজন তাকে বিয়ের ঘটনা চাপা দেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে এবং অন্য জায়গায় তার স্বামীকে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।  সাবরিনা আক্তার বলেন,  আমি সামাজিক ভাবে রুবেল আহমেদের স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি চাই এবং তার সঙ্গে সংসার করতে চাই।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত রুবেল আহমেদ জানান, সাবরিনাকে তিনি বিয়ে করেননি। হয়রানি করার জন্য মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।