দুই ভাইকে অপহরণের পর কথিত বন্দুকযুদ্ধে হত্যার অভিযোগে দায়ের হওয়া সিআর মামলা স্থগিত করেছেন আদালত। সোমবার চট্টগ্রাম অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফরিদা ইয়াছমিনের আদালত এ আদেশ দেন। ফলে ন্যায়বিচার পাননি বলে বাদীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

বাদীর আইনজীবী জিয়া হাবিব আহসান বলেন, প্রবাসী আজাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের কোনো আদালতে মামলাতো দূরে থাক একটি জিডিও নেই। তাকে বন্দুকযুদ্ধের নামে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। আদালত কক্সবাজারে এ ঘটনায় কোনো হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে কিনা সংক্রান্ত রিপোর্ট তলব করেন।

কক্সবাজার থেকে রিপোর্টে কোনো হত্যা মামলা রেকর্ড হয়নি উল্লেখ করার পরও আদালত মামলার কার্যক্রম স্থগিত করার আদেশ দিয়েছেন। এতে বাদী ন্যায়বিচার বঞ্চিত হয়েছেন। বাদী উচ্চ আদালতে এ আদেশের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই করবেন বলে জানিয়েছেন।

মামলার বাদী রিনাত সুলতানা শাহীন বলেন, আমার ভাই আজাদ ৭ বছর বাহরাইনে ছিলেন। খুন হওয়ার কিছু দিন আগে দেশে আসেন। তিনি আসার পর ৮ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে প্রথমে গুম, পরে বন্দুকযুদ্ধের নামে খুন করেন ওসি প্রদীপ। আমার ভাইয়েরা ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন না। পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের সঠিক বিচার চাই। আদালতের এ আদেশে ন্যায়বিচার বঞ্চিত হয়েছি আমরা।

গত ২ সেপ্টেম্বর আট লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে চন্দনাইশের দুই ভাইকে অপহরণ করে বন্দুকযুদ্ধে হত্যার অভিযোগে ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৫ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা হয়। নিহতরা হলেন আমানুল হক ফারুক ও আজাদুল ইসলাম আজাদ।