লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বিয়ের কথা বলে এক তরুণীকে (২৫) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের দায় স্বীকার করে দুই আসামি আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। মঙ্গলবার বিকেলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তারা এ জবানবন্দি দেন। আসামিরা হলেন- উপজেলার পাটারীরহাট এলাকার ছায়েদল হকের ছেলে মো. সুমন (২৪) এবং একই এলাকার শামছল হকের ছেলে ছগির আহাম্মদ (৪৩)।

পুলিশ জানায়, আসামি ছগির আহাম্মদ নিজেকে ঘটক পরিচয় দিয়ে প্রতিবেশী  এক যুবক সুমনের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার কথা বলে ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পাটারীরহাট এলাকায় নিয়ে যান। এক পর্যায়ে তারা দুজন ওই নারীকে কৌশলে একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার ওই নারী বাদী হয়ে সোমবার থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দু’জনকে গ্রেপ্তার করে। পরে মঙ্গলবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হলে দু’জনে ঘটনার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

কমলনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ নুরুল আবছার জানান, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির পর আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দুই আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। নির্যাতনের শিকার ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।